ব্রেকিং:
লক্ষ্মীপুরে শিশু হত্যার দায়ে মা আটক জেলা প্রশাসকের বিরুদ্ধে প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ অটোরিক্সা বন্ধে ট্রাফিক পুলিশের প্রচারণা মা ইলিশ রক্ষায় জেলেদের মধ্যে চাল বিতরণ ওসি ইকবাল হোসেনের বিদায় সংবর্ধনা স্বেচ্ছায় অবসর নিয়েও স্বপদে বহাল শরীর চর্চা শিক্ষক প্রশাসনের কাজে খুশি হয়ে শ্রমিকদের আনন্দ মিছিল সাদা ছড়ি ব্যবহার করি, নিশ্চিন্তে পথ চলি লক্ষ্মীপুরে জাতীয় স্যানিটেশন মাস ও বিশ্ব হাত দোয়া দিবস পালিত ডেঙ্গু কেড়ে নিলো ব্যবসায়ীর প্রাণ ২০২৩ বিশ্বকাপের আয়োজক হতে পারে বাংলাদেশ! সম্রাটের ১০ দিনের রিমান্ড আবরার হত্যাকাণ্ডকে ইস্যু বানাতে চাচ্ছে বিএনপি: কাদের বিশ্বে ৭০ কোটি শিশু পুষ্টিহীনতায় ভুগছে ইরান ও সৌদিকে সরাসরি আলোচনায় বসার প্রস্তাব ইমরান খানের নতুন প্রজন্মকে পরিচ্ছন্ন দেশ গড়ার আহ্বান ঢাকায় হচ্ছে আরো দুই মেট্রোরেল দুই মাসেও সন্ধান মেলেনি স্বজনদের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে মাছ শিকার,আটক ৬ চর লরেঞ্জ ইউপি সদস্য নির্বাচনে ইসমাইল হোসেনের জয়

বুধবার   ১৬ অক্টোবর ২০১৯   কার্তিক ১ ১৪২৬   ১৬ সফর ১৪৪১

১০০১

আনিসের ঘনিষ্ঠ সহচর লক্ষ্মীপুরের নোমান

প্রকাশিত: ৬ অক্টোবর ২০১৯  

অবৈধ উপায়ে অঢেল অর্থ সম্পদের মালিক যুবলীগের কেন্দ্রীয় দফতর সম্পাদক কাজী আনিসুর রহমান আত্মগোপনে রয়েছেন। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে দেশজুড়ে শুদ্ধি অভিযান শুরু হওয়ার পর থেকেই আনিস লাপাত্তা। এদিকে সেই আনিসুর রহমানের ঘনিষ্ঠ সহচর লক্ষ্মীপুর জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল নোমান। তিনি ইউনিয়ন ছাত্রলীগ থেকে লাফ মেরে জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছেন। মালিক হয়েছেন গাড়ি, বাড়ি সহ অঢেল সম্পদের। ইতোমধ্যে আনিসের সাথে নোমানের ঘনিষ্ঠতার বেশ কিছু ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করা হচ্ছে।
দলীয় একটি সূত্র জানায়, লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার বশিকপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগ থেকে ২০১৭ সালের ২৪ নভেম্বর জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হোন আব্দুল্লাহ আল নোমান। এর আগে ২০১৫ সাল থেকে কেন্দ্রীয় যুবলীগের দফতর সম্পাদক কাজী আনিসুর রহমানের সাথে তার সখ্যতা গড়ে উঠে। আনিসের হাত ধরে অঢেল অর্থ সম্পদের মালিক হয়েছেন। বিষয়টি তদন্ত করলে লেনদেনের ভয়াবহ তথ্য বেরিয়ে আসার সম্ভাবনা রয়েছে। সম্প্রতি তিনি ৩৫ লাখ টাকা মুল্যের হোন্ডা কোম্পানির সাদা রঙের একটি ভেজেল জীপ কিনেন। ঢাকা ৬তলা বাড়ি সহ রয়েছে প্ল্যাট বাসাও এমনটাই জানিয়েছে দলীয় একটি সূত্র। এছাড়া চলতি বছরে পুলিশকে মারধরের ঘটনায় লক্ষ্মীপুর মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়। ওই মামলায় নোমানকে প্রধান আসামী করে যুবলীগ নেতাকর্মীদের নামে মামলা করে পুলিশ।
অভিযোগ রয়েছে, যুবলীগের আনিসুর রহমানের ঘনিষ্ট ও বিশ^স্ত হওয়ায় নোমানের মাধ্যমে দেশের বিভিন্নস্থানের কয়েকটি জেলা ও উপজেলা কমিটি দেওয়ার নামে আনিস বিপুল পরিমাণ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। এক্ষেত্রে নোমানের ব্যাংক হিসাব নম্বর ব্যবহার করা হয়। সেখান থেকে কমিশনের একটি অংশ তার নিজের থেকে যায়। গত দুই বছরে অঢেল সম্পদের মালিক বনে যান নোমান।
এদিকে নাম প্রকাশ না করা শর্তে আওয়ামী লীগের এক নেতা জানান, আব্দুল্লাহ আল নোমান ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি ছিল। ঢাকা এসে আনিসের শালা শুভ’র সাথে বন্ধুত্ব গড়ে তোলে। এ সুবাধে আনিসের বাসায় ও অফিসে কাজ করতো সে। নোমান আনিসের মোবাইল শো-রুম, বসুন্ধরা মার্কেট ও গুলশানা নাভানা টাওয়ারের দোকান দেখা শুনা করে। কিন্তু অল্প সময়ে কি করে এতো টাকার মালিক হয় নোমান? একাধিকবার বিদেশ সফরেও গিয়েছেন নোমান। আনিসের সহধর্মীনির সাথে ছিলো নোমানের ঘনিষ্ট সম্পর্ক। টাকার বিনিময়ে লক্ষ্মীপুর জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদকের পদ হাতিয়ে নিয়েছে নোমান।
আইন শৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনীসহ বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে, দেশে শুদ্ধি অভিযান শুরু হওয়ার পর পরই দেশ থেকে পালিয়ে কলকাতায় আশ্রয় নিয়েছেন কাজী আনিস। বিশেষ করে যুবলীগ থেকে বহিষ্কৃত সাংগঠনিক সম্পাদক খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়া, জি কে শামীম গ্রেফতার হওয়ার পর থেকে লাপাত্তা কাজী আনিস। দেশে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা কাজী আনিসকে গ্রেফতারের জন্য হন্যে হয়ে খুঁজে বেড়াচ্ছেন।
অভিযোগের বিষয়ে জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল্ল্যাহ আল নোমানের মুঠোফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করেও পাওয়া যায়নি।

আলোকিত লক্ষ্মীপুর
আলোকিত লক্ষ্মীপুর
এই বিভাগের আরো খবর
//