ব্রেকিং:
লক্ষ্মীপুরে করোনা উপসর্গে প্রবাসীর মৃত্যু! লক্ষ্মীপুরে কৃষকের ধান কেটে দিলেন নির্বাহী কর্মকর্তা লক্ষ্মীপুরে করোনা রোগী ৩৭ জন : নতুন করে শিশুসহ আক্রান্ত ৩ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক করোনায় আক্রান্ত করোনার তাণ্ডবে প্রাণ গেল ২ লাখ ১১ হাজার মানুষের মারা যাওয়া তরুণের করোনা নেগেটিভ, তিন ভাই বোনের পজেটিভ লক্ষ্মীপুরে কৃষকের ধান কেটে বাড়ি পৌঁছে দিল এডভোকেট নয়ন লক্ষ্মীপুরে ত্রাণের সাথে ঘরও পেল লুজি মানসম্মত কোন ধাপ অতিক্রম করেনি গণস্বাস্থ্যের কিট পরিস্থিতি ঠিক না হলে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত সব স্কুল-কলেজ বন্ধ বিভিন্ন থানার পুলিশ সদস্যদের সাথে পুলিশ সুপারের ভিডিও কনফারেন্স লক্ষ্মীপুরে আরো ৩ জনের করোনা পজেটিভ আপনিকি করোনা পরীক্ষায় গণস্বাস্থ্যকেন্দ্রের কিট ব্যবহারের বিপক্ষে? লক্ষ্মীপুরে ধান কেটে কৃষকের ঘরে পৌঁছে দিল ছাত্রলীগ লক্ষ্মীপুরে ২০০০ পরিবার পেল উপহার সামগ্রী কমলনগরে করোনা উপসর্গে একজনের মৃত্যু, এক বাড়ি লকডাউন ধান কেটে বাড়ি পৌঁছে দিলো ছাত্রলীগ, কৃষকের মুখে হাসি ভবানীগঞ্জে কর্মহীন পরিবহণ শ্রমিকদের মাঝে সদর এমপি’র ত্রাণ বিতরণ করোনায় মৃতের সংখ্যা ১ লাখ ৯২ হাজার ছাড়ালো লক্ষ্মীপুরে লকডাউন অবস্থায় অসুস্থ যুবকের মৃত্যু : নমুনা সংগ্রহ
  • মঙ্গলবার   ০৪ আগস্ট ২০২০ ||

  • শ্রাবণ ২১ ১৪২৭

  • || ১৪ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

৫৯৪

এদিন লক্ষ্মীপুরে ওড়ে বিজয়ের পতাকা

আলোকিত লক্ষ্মীপুর

প্রকাশিত: ৪ ডিসেম্বর ২০১৯  

আজ ৪ ডিসেম্বর। লক্ষ্মীপুর হানাদারমুক্ত দিবস। ১৯৭১ সালের এই দিনে হানাদার বাহিনী ও তাদের দোসরদের দেশছাড়া করে বিজয়ের পতাকা ওড়ায় মুক্তিবাহিনী।

মুক্তিযুদ্ধের সময় রাজাকারদের সহায়তায় লক্ষ্মীপুরের পাঁচটি উপজেলায় অগ্নিসংযোগ, লুটপাট, ধর্ষণে মেতে ওঠে পাক বাহিনী। হত্যা করে শত শত নিরীহ মানুষকে।

শত্রু মুক্তির পর ‘জয় বাংলা’ স্লোগানে মুখরিত হয়ে ওঠে লক্ষ্মীপুর।

জেলা মুক্তিযোদ্ধা ইউনিটের তথ্য অনুযায়ী, মুক্তিযুদ্ধের সময় লক্ষ্মীপুরের বিভিন্ন স্থানে ১৭টি সম্মুখযুদ্ধসহ ২৯টি অভিযান চালায় মুক্তিযোদ্ধারা। এসব যুদ্ধে ৩৫ জন মুক্তিযোদ্ধা শহীদ হন। আজও হানাদার ও রাজাকারদের নারকীয় হত্যাযজ্ঞের নীরব সাক্ষী হয়ে আছে বাগবাড়ি গণকবর, টর্চারসেল, মাদাম ব্রিজ বধ্যভুমি, পিয়ারাপুর ব্রিজ, বাসু বাজার গণকবর, চন্দ্রগঞ্জ, রসুলগঞ্জ, আবদুল্যাপুর, রামগঞ্জের বধ্যভূমি।

মুক্তিযোদ্ধা মনসুরুল হক জানান, ১৯৭১ সালের ২ ডিসেম্বর দেড় শতাধিক মুক্তিযোদ্ধা লক্ষ্মীপুর সদরের দালাল বাজার, দক্ষিণ হামছাদী, শাখারী পাড়ার মিঠানীয়া খালপাড়সহ বাগবাড়ি রাজাকার ক্যাম্পে হামলা চালায়। দুইদিনের ওই যুদ্ধ শেষে লক্ষ্মীপুর হানাদারমুক্ত হয়। অস্ত্র-বিপুল গোলাবারুদসহ আটক হয় দেড় শতাধিক রাজাকার।

জেলা মুক্তিযোদ্ধা ইউনিটের সাবেক কমান্ডার তোফায়েল আহম্মদ বলেন, স্বাধীনতার ৪৮ বছর পরও এসব হত্যাকাণ্ডের স্মৃতি মনে করে শিউরে উঠি। সরকার র্শীষ যুদ্ধাপরাধীদের বিচার করেছে। দ্রুত বাকিদের বিচারের দাবি জানাই।

আলোকিত লক্ষ্মীপুর
আলোকিত লক্ষ্মীপুর
লক্ষ্মীপুর বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর
//