ব্রেকিং:
লক্ষ্মীপুরে করোনা উপসর্গে প্রবাসীর মৃত্যু! লক্ষ্মীপুরে কৃষকের ধান কেটে দিলেন নির্বাহী কর্মকর্তা লক্ষ্মীপুরে করোনা রোগী ৩৭ জন : নতুন করে শিশুসহ আক্রান্ত ৩ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক করোনায় আক্রান্ত করোনার তাণ্ডবে প্রাণ গেল ২ লাখ ১১ হাজার মানুষের মারা যাওয়া তরুণের করোনা নেগেটিভ, তিন ভাই বোনের পজেটিভ লক্ষ্মীপুরে কৃষকের ধান কেটে বাড়ি পৌঁছে দিল এডভোকেট নয়ন লক্ষ্মীপুরে ত্রাণের সাথে ঘরও পেল লুজি মানসম্মত কোন ধাপ অতিক্রম করেনি গণস্বাস্থ্যের কিট পরিস্থিতি ঠিক না হলে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত সব স্কুল-কলেজ বন্ধ বিভিন্ন থানার পুলিশ সদস্যদের সাথে পুলিশ সুপারের ভিডিও কনফারেন্স লক্ষ্মীপুরে আরো ৩ জনের করোনা পজেটিভ আপনিকি করোনা পরীক্ষায় গণস্বাস্থ্যকেন্দ্রের কিট ব্যবহারের বিপক্ষে? লক্ষ্মীপুরে ধান কেটে কৃষকের ঘরে পৌঁছে দিল ছাত্রলীগ লক্ষ্মীপুরে ২০০০ পরিবার পেল উপহার সামগ্রী কমলনগরে করোনা উপসর্গে একজনের মৃত্যু, এক বাড়ি লকডাউন ধান কেটে বাড়ি পৌঁছে দিলো ছাত্রলীগ, কৃষকের মুখে হাসি ভবানীগঞ্জে কর্মহীন পরিবহণ শ্রমিকদের মাঝে সদর এমপি’র ত্রাণ বিতরণ করোনায় মৃতের সংখ্যা ১ লাখ ৯২ হাজার ছাড়ালো লক্ষ্মীপুরে লকডাউন অবস্থায় অসুস্থ যুবকের মৃত্যু : নমুনা সংগ্রহ
  • রোববার   ০৭ জুন ২০২০ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ২৪ ১৪২৭

  • || ১৪ শাওয়াল ১৪৪১

১১৮

করোনার ঔষধ আবিষ্কার বিষয়ে কিছু বিভ্রান্তির অবসান

আলোকিত লক্ষ্মীপুর

প্রকাশিত: ১০ এপ্রিল ২০২০  

করোনা ভাইরাসের কারণে দুনিয়ার মানুষ এখন করোনার ঔষধ আর ভ্যাক্সিন নিয়ে আগ্রহী। সারা দুনিয়ার হলুদ সাংবাদিকরা এটা ভালো করেই বুঝেছে। এখন এই নিউজ মানুষের আগ্রহে বাড়াবে৷ তাই ঐসব হলুদ সাংবাদিকদের প্রতি মুহুর্তে ভ্যাক্সিন, মেডিসিনের আপডেট দরকার। সামনে যে রিসার্চার পাচ্ছে তাকেই তারা জিজ্ঞেস করছে আপডেট কি?
তারপর বড়সড় করে হেডলাইন দিচ্ছে,
“অমুক দেশে করোনার মেডিসিন আবিস্কার”!

মানুষ আনন্দে শেয়ার দিচ্ছে।  ভিতরে পুরো সংবাদ পড়ে ছোট্ট করে লেখা পাওয়া যায়- ক্লিনিকাল ট্রায়ালে আছে, হিউমেন ট্রায়াল ফেজ টু তে আছে।
এই ট্রায়াল যে কি জিনিস, কত লম্বা প্রসেস, নির্দিষ্ট মেডিসিনের হিউমেন ট্রায়ালে যে কত হাজার বার সেম রেজাল্ট রেপ্লিকেট করলে, পজিটিভ এলে সেটা মার্কেটে আসবে সেই ব্যাপারে মানুষের ধারণা নেই।
থাকবেও না কারণ আমরা বিসিএস দেয়ার জন্য বিজ্ঞান পড়ি।

সায়েন্স মানে পুনরাবৃত্তি। যেমন আমরা জানি- আলোর গতি থ্রি ইনটু টেন টু দি পাওয়ার এইট মিটার পার সেকেন্ড।  এই যে আলোর গতি। এটা কি পদার্থবিজ্ঞানীরা ১ বার টেস্ট করে, গতি মেপে জার্নালে পাবলিশ করে দিলো?
আজ্ঞে না, লক্ষ লক্ষবার সেম টেস্ট করা হয়েছে সেম রেজাল্ট এসেছে, ক্রসচেক করা হয়েছে, পিয়ার রিভিউ করা হয়েছে তারপর যেয়ে এটা ঘোষণা করা হয়েছে আলোর গতি এই।
দুনিয়ার সবকিছু ৯৯.৯৯% একুরেসি নিয়ে চলতে পারে সায়েন্সে সেটা ১০০% হতে হবে।

ওইদিন এক স্বনামখ্যাত সেলেব্রেটি ফেসবুকে লিখল, “সুখবর! হাইড্রোকুইনিন করোনার ড্রাগস। সাথে এজিথ্রোমাইসিন!!
ভাই আপনের কাজ মিডিয়াতে আপনার এখানে কি? খারাপ অভিনয় করে নাটক বানানো যায় বাট ফুল একুরেসি ছাড়া রেজাল্ট প্রকাশ করা যায়না।
 
এখন আবার অনলাইনে জাপানিজ ড্রাগ এভিগেন কে নিয়ে চলছে আবেগ দেখানো। সবাই মনযোগ দিয়ে পড়েন- এভিগেনের মাত্র প্রথম ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল শেষ হলো৷ চায়না ভালো রিপোর্ট দিয়েছে। জাপান যে ২০টা দেশকে আগে দিবে বলছে সেসব দেশেও আগে ট্রায়াল হবে কার্যকারীতা দেখা হবে তারপর সরকারি তত্বাবধানে সেটা ইউজ করা হবে। প্রসেস টা লম্বা।

ফেভিপিরাভির গ্রুপের এই এন্টি ফ্লু ড্রাগ কার্যকরী করোনার বিরুদ্ধে কিন্তু এখন পর্যন্ত যথেষ্ট ক্লিনিকাল এভিডেন্স পাওয়া যায়নি যে বলে দিব, যাও এভিগেন নাও করোনা চলে যাবে৷ ইতিমধ্যে সাউথ কোরিয়া ফেভিপিরাভিরের সাইড এফেক্ট (এমব্রায়ো ড্যামেজ) নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে৷ তারা সাজেস্ট করেছে আরেক এন্টি ভাইরাল ড্রাগ রেমডিসিভির যেটা ইবোলা ভাইরাসের ক্ষেত্রে কাজ করছিল। সেটার বিরুদ্ধে আবার জাপানিজরা প্রশ্ন তুলেছে। বিজ্ঞান এটাই?
কি, কেনো, কিভাবে?

আরেকজন গুজব দেখলাম- করোনা রোধে কেউ একজন ইথানল খেতে বলছে। এখন দলে দলে সবাই ইন্ড্রাস্ট্রিয়াল গ্রেড ইথানল ( ৯৯.৯%) খেয়ে মরে যাক। একসময় এ দেশে শত শত মদখোর ইথানলরে মদ ভেবে খেয়ে মারা গেছে।

যারা নিজেরাই ফেসবুকে পার্টটাইম সায়েন্টিস্ট হয়ে এভিগেনকে করোনা ড্রাগ ঘোষণা দিচ্ছেন আসেন দেখি জাপানের যে কোম্পানি এই ট্রায়াল করছে তাদের বক্তব্য কি?
প্রতিষ্ঠানটি তাদের ওয়েবসাইটে Avigan এর ট্রায়াল সংক্রান্ত সংবাদগুলো প্রকাশ করছে। কিন্তু ট্রায়ালের কোনো ফলাফল ঘোষণার খবর তাদের ওয়েবসাইটে নেই। fujifilm এর ওয়েবসাইটের news সেকশনের লিংক: https://www.fujifilm.com/jp/en/news/list

fujifilm নিজেদের ওয়েবসাইটে একটি বিশেষ পেইজ খুলেছে যার টাইটেল "Information of Avigan Tablet in relation to Covid-19", সেখানে বলা হয়েছে --
"However, at this stage, clinical application of Avigan Tablet to treat Coronavirus disease (Covid-19) is under study and preparation in order to obtain clear evidence of the drug's efficacy and safety."
অর্থাৎ, ৯ এপ্রিল পর্যন্ত fujifilm জানাচ্ছে তাদের ওষুধটি এখনও সেটির কার্যকরতা প্রমাণের পরীক্ষার মধ্যে রয়েছে, (কোনো ফলাফল পাওয়া যায়নি)।

৩১ মার্চ fujifilm যখন Avigan এর ক্লিনিকাল ট্রায়াল শুরুর ঘোষণা দেয় তখন প্রতিষ্ঠানটির কর্তৃপক্ষ বার্তা সংস্থা এএফপি'কে জানিয়েছিলো আগামী জুন মাসের শেষ পর্যন্ত ১০০ জন রোগীর ওপর এই পরীক্ষা নিরীক্ষা চলবে। এবং সর্বোচ্চ ১৪ দিন পর্যন্ত রোগীদের ওপর ওষুধ প্রয়োগ করা হবে।

৩১ মার্চ থেকে আজ ১০ এপ্রিল মোট ১১ দিন সময় পার হয়েছে। এবং জুন মাসের শেষ পর্যন্ত এখনও দুই মাসের বেশি সময় ধরে ট্রায়াল চলবে। ট্রায়াল শেষ হওয়ার আগে, এমনকি ওষুধ প্রয়োগের সর্বোচ্চ সময়সীমা পার হওয়ার আগে এ ধরনের ক্লিনিকাল ট্রায়ালের "আন-অফিসিয়াল" ফলাফল প্রকাশের সুযোগ নেই।

এএফপি রিপোর্টের একটি অংশ এখানে হুবহু তুলে ধরা হলো--
"The trial will be conducted on 100 patients until the end of June," a company spokesman told AFP on Wednesday.
"We will collect data, analyse them and file for approval after that," he added.
The drug will be administered for a maximum of 14 days to coronavirus patients between 20 and 74 years old with mild pneumonia, the spokesman said.

দুনিয়ার সবকিছু ধারণায় চলে, সায়েন্স চলে রেজাল্টে, রিপিটেটিভ রেজাল্টে৷  আমাদের মানুষদের কথা শুনলে মনে হয় একটা নিউ ড্রাগ হল দারাজের প্রোডাক্ট, অর্ডার দিলাম, বাসায় দিয়ে গেলো৷

সুতরাং ভাইয়েরা ড্রাগ আবিস্কারের খুশীতে লকডাউন ছেড়ে নাচতে  বের হবেন না। আগামী দুই মাসে কোন ড্রাগ আমরা পাচ্ছিনা।  পেলে সেটা হবে মিরাকল।

রাইট নাউ করোনার মেডিসিন একটাইঃ
বাসায় থাকুন, বাসায় থাকুন এবং বাসায় থাকুন

আলোকিত লক্ষ্মীপুর
আলোকিত লক্ষ্মীপুর
করোনাভাইরাস বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর
//