ব্রেকিং:
দুই দোকানে চুরি, ১৭ লাখ টাকার মালামাল লুট ১৪ নভেম্বর থেকে ৩দিন ব্যাপি জাতীয় নজরুল সম্মেলন কিশোরগঞ্জ আদালতের বিচারককে হাইকোর্টে তলব চিরনিদ্রায় শায়িত ‘সোনার টুকরা আদিবা’ আজীবন ছাত্রত্ব বাতিল হতে যাচ্ছে বুয়েটের ২৫ শিক্ষার্থীর শতভাগ নরমাল ডেলিভারিতে চাঁদপুর মাতৃমঙ্গল রায়পুরে ঘূর্ণিঝড় বুলবুলে ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ লক্ষ্মীপুর থেকে উপকূল দিবসের রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতি দাবি লক্ষ্মীপুরের জমিদারবাড়ি ঘিরে অপার সম্ভাবনা আল্লাহ এমপি কন্যার মনোবাসনা পূর্ণ করুন লক্ষ্মীপুর সরকারি কলেজে উপকূল দিবস পালিত রায়পুরে মুজিববর্ষ জাতীয় স্কুল কাবাডি শুরু রামগতিতে দূর্গতের মাঝে ত্রাণ বিতরণ ঘূর্ণিঝড় বুলবুলে ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে চাউল ও টেউটিন বিতরণ জেলা গোয়েন্দা শাখার নতুন ভবন এর “শুভ উদ্ভোধন” এই খাবারগুলো কাঁচা খাওয়াই উত্তম! চীনে স্কুলে রাসায়নিক হামলা, শিশুসহ আহত অর্ধশতাধিক মহারাষ্ট্রে রাষ্ট্রপতির শাসন জারি রাষ্ট্রীয় পতাকাবাহী জাহাজের সুরক্ষায় বিল পাস ঘূর্ণিঝড় বুলবুলে কৃষিতে ক্ষতি ২৬৩ কোটি টাকা

বৃহস্পতিবার   ১৪ নভেম্বর ২০১৯   কার্তিক ৩০ ১৪২৬   ১৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

চাঁদপুর শহরের দর্জিঘাট এলাকায় ডাকাতিয়া নদীর ভাঙ্গন দেখা দিয়েছে

প্রকাশিত: ৭ নভেম্বর ২০১৯  

চাঁদপুর শহরের দর্জিঘাট এলাকায় ডাকাতিয়া নদীর ভাঙ্গন দেখা দিয়েছে। যার ফলে হুমকির মুখে রয়েছে প্রাথমিক বিদ্যালয়সহ অনেক বাড়ি-ঘর। ভাঙ্গন রোধে স্থানীয়ভাবে ফেলা হচ্ছে মাটিভর্তি বস্তা। একই সাথে বড় ধরনের ভাঙ্গন আতঙ্কে বিভিন্ন প্রজাতির ফলদ গাছ কেটে ফেলা হয়েছে।

এদিকে ভাঙ্গন এলাকায় যেসব পরিবারের বসত-ভিটা নদী গর্ভে বিলীন হয়ে যাওয়ার ঝুঁকিতে রয়েছে, তাদের অনেকেই নিজ উদ্যোগে ভাঙ্গন ঠেকাতে বাঁশের খুঁটি গেড়ে ভাঙ্গন রোধ করার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন।

জানা যায়, চাঁদপুর পৌরসভার ১২নং ওয়ার্ডস্থ ৬২নং গুণরাজদী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে থেকে পার্শ্ববর্তী দর্জি বাড়ি, বেপারী বাড়ির সামনে থাকা ডাকাতিয়া নদী পাড়ের অনেক জায়গা জুড়ে এ ভাঙ্গন দেখা দিয়েছে। ওই দুই বাড়ির বেশকিছু পরিবারের বসতঘর ভাঙ্গনের ঝুঁকিতে রয়েছে।

স্থানীয়দের অভিযোগ, দর্জিঘাট এলাকায় নদীর অপর প্রান্তে দেশ এনার্জি নামক বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্র নদীর অংশবিশেষ ভরাট করে নির্মাণ করার ফলে গত কয়েক বছর ধরে অল্প অল্প করে ভাঙ্গন দেখা দেয়। কারণ নদীর ওপারে থাকা চরের সাথে নদীর পাড় জুড়ে বালু ফেলে অনেকটা ভরাট করা হয়েছে এবং প্রায়সময়ই সেখানে বিদ্যুৎকেন্দ্রের মালামাল নিয়ে আসা জাহাজ, শীপ নোঙর করে ফেলে রাখার কারণে নদীর জোয়ার-ভাটার স্রোত ও ঢেউ ভাঙ্গনস্থানে গিয়ে আঘাত করে। তখনই ভাঙ্গন শুরু হয়। তারা জানান, একসময় ভাঙ্গন এলাকার এপারে চর জেগে ছিলো। কিন্তু গত কয়েক বছরের ভাঙ্গনে সেই চরটিও এখন নদীতে বিলীন হয়ে গেছে। আর তার একমাত্র কারণ হচ্ছে দেশ এনার্জি বিদ্যুৎ কেন্দ্র।

গতকাল ৬ নভেম্বর বুধবার সকালেও একইভাবে ভাঙ্গন দেখা দিলে চাঁদপুর পৌরসভার ১২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর হাবিবুর রহমান দর্জি বিষয়টি পৌর মেয়র আলহাজ নাছির উদ্দিন আহমেদকে অবহিত করলে তিনি ভাঙ্গনস্থানে প্রাথমিকভাবে মাটির বস্তা ফেলার পরামর্শ দেন। তারপর বুধবার দুপুর পর্যন্ত সেখানে প্রায় এক থেকে দেড়শ' মাটির বস্তা ফেলা হয় বলে জানিয়েছেন হাবিবুর রহমার দর্জি।

আলোকিত লক্ষ্মীপুর
আলোকিত লক্ষ্মীপুর
এই বিভাগের আরো খবর
//