ব্রেকিং:
লক্ষ্মীপুরে করোনা উপসর্গে প্রবাসীর মৃত্যু! লক্ষ্মীপুরে কৃষকের ধান কেটে দিলেন নির্বাহী কর্মকর্তা লক্ষ্মীপুরে করোনা রোগী ৩৭ জন : নতুন করে শিশুসহ আক্রান্ত ৩ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক করোনায় আক্রান্ত করোনার তাণ্ডবে প্রাণ গেল ২ লাখ ১১ হাজার মানুষের মারা যাওয়া তরুণের করোনা নেগেটিভ, তিন ভাই বোনের পজেটিভ লক্ষ্মীপুরে কৃষকের ধান কেটে বাড়ি পৌঁছে দিল এডভোকেট নয়ন লক্ষ্মীপুরে ত্রাণের সাথে ঘরও পেল লুজি মানসম্মত কোন ধাপ অতিক্রম করেনি গণস্বাস্থ্যের কিট পরিস্থিতি ঠিক না হলে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত সব স্কুল-কলেজ বন্ধ বিভিন্ন থানার পুলিশ সদস্যদের সাথে পুলিশ সুপারের ভিডিও কনফারেন্স লক্ষ্মীপুরে আরো ৩ জনের করোনা পজেটিভ আপনিকি করোনা পরীক্ষায় গণস্বাস্থ্যকেন্দ্রের কিট ব্যবহারের বিপক্ষে? লক্ষ্মীপুরে ধান কেটে কৃষকের ঘরে পৌঁছে দিল ছাত্রলীগ লক্ষ্মীপুরে ২০০০ পরিবার পেল উপহার সামগ্রী কমলনগরে করোনা উপসর্গে একজনের মৃত্যু, এক বাড়ি লকডাউন ধান কেটে বাড়ি পৌঁছে দিলো ছাত্রলীগ, কৃষকের মুখে হাসি ভবানীগঞ্জে কর্মহীন পরিবহণ শ্রমিকদের মাঝে সদর এমপি’র ত্রাণ বিতরণ করোনায় মৃতের সংখ্যা ১ লাখ ৯২ হাজার ছাড়ালো লক্ষ্মীপুরে লকডাউন অবস্থায় অসুস্থ যুবকের মৃত্যু : নমুনা সংগ্রহ
  • শুক্রবার   ০৭ আগস্ট ২০২০ ||

  • শ্রাবণ ২৩ ১৪২৭

  • || ১৬ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

৭০১

‘ঝাউডগি’ গ্রামে সন্ধ্যা নামলেই গ্রাম জুড়ে আতঙ্ক

আলোকিত লক্ষ্মীপুর

প্রকাশিত: ১ ডিসেম্বর ২০১৯  

ঝাউডগি গ্রামটি সবুজ প্রকৃতিতে ঘেরা। চতুর্দিকে ফসলী জমি। মাঝপথে ভয়ে গেছে মেঠপথ। দিনের বেলা কৃষকরা ব্যস্ত মাঠ থেকে আমনধান ঘরে নিতে। আর সন্ধ্যা নামলে ডাকাত ও সন্ত্রাসীদের ভয়ে একধরণের চাপা-আতঙ্ক বিরাজ করে গ্রামবাসীদের মাঝে। মাঝে মধ্যে গুলিবর্ষণের শব্দও শুনতে পান গ্রামবাসী।

লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার কুশাখালী ইউনিয়নের একটি (ওয়ার্ড) গ্রামের নাম ঝাউডগি। এ গ্রামে বসবাস করেন হাজার হাজার মানুষ। তবুও প্রতিদিন সন্ধ্যা নামলে ডাকাত ও সন্ত্রাসীদের ভয়ে এক ধরণের চাপা-আতঙ্ক বিরাজ করে পুরো গ্রাম জুড়ে।

চলতি বছরে কুশাখালী ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ কামাল পাটোয়ারীর বড় ভাই (গরু ব্যবসায়ী) মোসলেহ উদ্দিনকে নৃশংসভাবে গুলি করে হত্যা করে সন্ত্রাসীরা। দীর্ঘদিন মামলাটি ঝুলে থাকে কোন এক অদৃশ্য শক্তির কারণে। পরে নিহতের বাবা দুধু মিয়া আদালতে মামলা করে। আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে তদন্ত দেয় জেলা গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশকে। ইতিমধ্যে গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের ইনেন্সপেক্টর সোলায়মান তদন্ত করে চার আসামীকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে আদালতে প্রেরণ করে। কারাবন্দীরা হলেন, নোয়াখালী সদর উপজেলার ডাকাত সিরাজ, ডাকাত এনু, ডাকাত জাকের ও ঝাউডগি গ্রামের জহির।

এ চারজনকে গ্রেপ্তারের পর থেকে তাদের অনুসারী হান্নান, সুজন, রহিম, মাহফুজ ও রুবেল বেপরোয়া হয়ে উঠেছে। তাদের ভয়ে এলাকাতে যেতে পারেন না ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক কামাল পাটোয়ারী।

শুক্রবার (২৯ নভেম্বর) বিকেলে কামাল পাটোয়ারী এলাকায় একটি জায়নামাজে অংশগ্রহণ করে। ওই থেকে আসামীরা কামালকে লক্ষ্য করে হত্যা করার জন্য বলে কামালের দাবি। পরে কামাল কৌশলে গ্রাম চেয়ে লক্ষ্মীপুরে চলে আসেন। রাত ১০ টার পর কামালের বড় ভাইয়ের ছেলে সোহেল দোকানপাট বন্ধ করে বাড়ির ফেরার পথে হান্নান, সুজন, রহিম, মাহফুজ ও রুবেল তার গতিরোধ করে অস্ত্র ঠেকিয়ে বলে কামালকে মোবাইল করার জন্য একপর্যায়ে সোহলকে বেদম মারধর করে পরে হান্নান গুলি করলে সেই মাটিতে লুটিয়ে পড়ে। তবে তার গায়ে গুলি লাগেনি। গুলির শব্দ শুনে চারপাশ থেকে মানুষ আসলে তারা পালিয়ে যাই। বর্তমানে ঝাউডগি গ্রামবাসী আতঙ্কে রয়েছে।

কুশাখালী ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ কামাল পাটোয়ারী বলেন, আমার ভাই ব্যবসায়ী ও রাজনীতি দ্বন্দ্বে সন্ত্রাসীদের হাতে নিহত হন। ওই সন্ত্রাসীরা এখন আমাকেও হত্যা করতে চায়। তাদের ভয়ে আমি গ্রাম ছাড়া। অভিযুক্ত কাউর দেখা পায়নি ঝাউডগি গ্রামে গিয়েও।

লক্ষ্মীপুর জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ রিয়াজুল কবির বলেন, আতঙ্ক হওয়ার কোন কারণ নেই। ইতিমধ্যে আমরা চার আসামীকে গ্রেপ্তার করে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠিয়েছি। বাকিদেরকে ধরতে পুলিশি অভিযান অব্যাহত আছে। এছাড়া যারা সন্ত্রাসীকান্ড করবে তদন্ত করে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আলোকিত লক্ষ্মীপুর
আলোকিত লক্ষ্মীপুর
লক্ষ্মীপুর বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর
//