ব্রেকিং:
প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে বিশ্ব ক্যারমে পঞ্চম হেমায়েত মোল্লা বিয়ের আগে একমাত্র কন্যাকে নিয়ে স্মৃতিচারণ মিথিলার চর মার্টিনে নেতৃত্বে আসতে চান বেলায়েত সকল সমুদ্র বন্দরের সংযোগ নেটওর্য়াক হবে ভোলা-লক্ষ্মীপুর সেতু লক্ষ্মীপুরে গুলিবিদ্ধ দুই যুবকের মরদেহ উদ্ধার লক্ষ্মীপুরে প্রতিবন্ধী দিবসে র‌্যালি ও সভা রামগঞ্জ উপজেলা শ্রেষ্ঠ প্রধান শিক্ষক শামছুল ইসলাম প্রতিবন্ধীদের নিয়ে ‘নেতিবাচক মানসিকতা’ পরিহার করুন: প্রধানমন্ত্রী যুব গোল্ডকাপ ব্যাডমিন্টন টুর্নামেন্ট উদ্বোধন ১৫ ডিসেম্বর থেকে ই-পাসপোর্ট চালু: পররাষ্ট্রমন্ত্রী কৃষিজাত পণ্য রফতানি করতে চাই: কৃষিমন্ত্রী গণতন্ত্র মুক্তি দিবস আজ সন্ধ্যায় সৃজিত-মিথিলার বিয়ে কাঁচা মাছ, মাংস, লতাপাতা খেয়েও স্বাভাবিক আছেন অদ্ভুত এই ব্যক্তি! কাতারে বাংলাদেশি হাফেজদের কৃতিত্বপূর্ণ সাফল্য সোনা কেনার সময় যা খেয়াল রাখা খুব জরুরি হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দীর মৃত্যুবার্ষিকী আজ বাংলাদেশের হজ কোটা বাড়াল সৌদি আরব সেরা কে? মুখ খুললেন অনুশকা আওয়ামী লীগের ২১তম কাউন্সিল হবে সাদামাটা

শনিবার   ০৭ ডিসেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ২২ ১৪২৬   ০৯ রবিউস সানি ১৪৪১

টিকটকে ভিডিও দেয়ায় স্ত্রীকে খুন করলো স্বামী

প্রকাশিত: ২৯ নভেম্বর ২০১৯  

নির্দেশ অমান্য করে টিকটক ভিডিও টিকটক অ্যাপসে প্রকাশ করায় স্ত্রীকে হত্যা করলো স্বামী। চলতি মাসের ১৭ তারিখে ভারতের অন্ধ্রপ্রদেশে গুনটুর জেলায় এ ঘটনাটি ঘটে।

পুলিশের দেয়া তথ্য মতে, চলতি মাসের ১৭ তারিখ স্থানীয় সময় রাতে সিডাল চিন্না নসরাইয়া তার স্ত্রী গোরপতি সুর্বথাকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে। এরপর তাকে গ্রামের শ্মশানে নিয়ে তার দেহ পুড়িয়ে ফেলে। আর এ কাজে তাকে সহযোগিতা করে চিন্নার ভাই ভেনিকিয়াহ।

জানা গেছে, ওই দম্পতি একটি বেসরকারি কোম্পানিতে সেলসম্যান হিসেবে কাজ করত। পাঁচ বছর আগে তাদের বিয়ে হয় ও তাদের ঘরে দুই বছরের একটি কন্যা সন্তান রয়েছে। টিকটকে ভিডিও বানানোর অভ্যাস ছিল সুবার্থার কিন্তু তার স্বামী তা পছন্দ করতেন না। যার ফলে দুইজনের মধ্যে ঝগড়া বিবাদ লেগেই থাকত।

পুলিশ জানিয়েছে, বনিবনা না হওয়ায় সুবার্থ তার মেয়েকে নিয়ে বাড়ি ছেড়ে নিজের বাবা-মায়ের কাছে চলে যায় সুবার্থ।  এরপর মেয়েকে সেখানে রেখে নিজে একটি হোস্টেলে থাকতেন। স্বামীকে আরো রাগান্বিত করতে টিকটকের ভিডিও পোস্ট করে চলছিল সুবার্থ।

এরপর দুজনের মধ্যে বনিবনা হলে সুবার্থ ১৪ নভেম্বর স্বামীর বাড়িতে ফিরে আসেন। আর এর তিনদিন পরেই চিন্না ও তার ভাই ভেনিকিয়াহ সুবার্থকে হত্যা করে। তারপর তাকে একটি হুইল চেয়ারে বসিয়ে গ্রামের পাশের একটি শশ্মানে নিয়ে পুড়িয়ে ফেলে।

অজ্ঞাত এক ব্যক্তি পুড়ে যাওয়ার অভিযোগ পেয়ে পুলিশ তদন্ত শুরু করে। মরদেহটির সঙ্গে থাকা গহনা দেখে তাকে চিহ্নিত করে পুলিশ। এরপর তদন্ত শেষে পুলিশ চিন্নাকে গ্রেফতার করে।

আলোকিত লক্ষ্মীপুর
আলোকিত লক্ষ্মীপুর
এই বিভাগের আরো খবর
//