ব্রেকিং:
লক্ষ্মীপুরে করোনা উপসর্গে প্রবাসীর মৃত্যু! লক্ষ্মীপুরে কৃষকের ধান কেটে দিলেন নির্বাহী কর্মকর্তা লক্ষ্মীপুরে করোনা রোগী ৩৭ জন : নতুন করে শিশুসহ আক্রান্ত ৩ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক করোনায় আক্রান্ত করোনার তাণ্ডবে প্রাণ গেল ২ লাখ ১১ হাজার মানুষের মারা যাওয়া তরুণের করোনা নেগেটিভ, তিন ভাই বোনের পজেটিভ লক্ষ্মীপুরে কৃষকের ধান কেটে বাড়ি পৌঁছে দিল এডভোকেট নয়ন লক্ষ্মীপুরে ত্রাণের সাথে ঘরও পেল লুজি মানসম্মত কোন ধাপ অতিক্রম করেনি গণস্বাস্থ্যের কিট পরিস্থিতি ঠিক না হলে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত সব স্কুল-কলেজ বন্ধ বিভিন্ন থানার পুলিশ সদস্যদের সাথে পুলিশ সুপারের ভিডিও কনফারেন্স লক্ষ্মীপুরে আরো ৩ জনের করোনা পজেটিভ আপনিকি করোনা পরীক্ষায় গণস্বাস্থ্যকেন্দ্রের কিট ব্যবহারের বিপক্ষে? লক্ষ্মীপুরে ধান কেটে কৃষকের ঘরে পৌঁছে দিল ছাত্রলীগ লক্ষ্মীপুরে ২০০০ পরিবার পেল উপহার সামগ্রী কমলনগরে করোনা উপসর্গে একজনের মৃত্যু, এক বাড়ি লকডাউন ধান কেটে বাড়ি পৌঁছে দিলো ছাত্রলীগ, কৃষকের মুখে হাসি ভবানীগঞ্জে কর্মহীন পরিবহণ শ্রমিকদের মাঝে সদর এমপি’র ত্রাণ বিতরণ করোনায় মৃতের সংখ্যা ১ লাখ ৯২ হাজার ছাড়ালো লক্ষ্মীপুরে লকডাউন অবস্থায় অসুস্থ যুবকের মৃত্যু : নমুনা সংগ্রহ
  • রোববার   ০৫ জুলাই ২০২০ ||

  • আষাঢ় ২১ ১৪২৭

  • || ১৩ জ্বিলকদ ১৪৪১

১৪০

ফরিদপুরে ছাত্রীকে কু-প্রস্তাব দিয়ে ফেঁসে গেলেন দুই শিক্ষক

আলোকিত লক্ষ্মীপুর

প্রকাশিত: ৫ নভেম্বর ২০১৯  

ফরিদপুরে দশম শ্রেণির এক ছাত্রীকে কু-প্রস্তাব দিয়ে ফেঁসে গেছেন সদরপুর নয়া ডাঙ্গী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও আইসিটি শিক্ষক। 

এ ঘটনায় অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষকের নাম কাজী কামরুল ইসলাম ও আইসিটি  শিক্ষক কাজী জহুরুল হককে সাময়িক বরখাস্ত করেছে বিদ্যালয়ের পরিচালনা পর্ষদ।  

পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি মো. মারুফ হোসেন মৃধা ডেইলি বাংলাদেশকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, সোমবার উদ্ভুত পরিস্থিতিতে বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদ জরুরি বৈঠকে বসে। এতে ওই দুই শিক্ষককে সাময়িক বরখাস্তের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

বিদ্যালয় সংশ্লিষ্ট ও স্থানীয়রা জানান, গত ২৯ অক্টোবর দশম শ্রেণির এক ছাত্রীকে অভিযুক্ত ওই দুই শিক্ষক কু-প্রস্তাব দেন। এতে সে অস্বীকৃতি জানালে বিকেলের দিকে বাবা ও মায়ের অনুপস্থিতিতে ওই ছাত্রীর ঘরে প্রবেশ করেন তারা। বিষয়টি তাৎক্ষনিক ওই ছাত্রী মা ও বাবাকে অবহিত করেন।

ওই ছাত্রীর মা-বাবা জানান, বিষয়টি অবগত হওয়ার একদিন পর সদরপুরের ইউএনও বরাবর প্রতিকার চেয়ে আবেদন করা হয়। তারা দাবি করেন, ওই শিক্ষকরা পুর্বেও একাধিকবার মেয়েটিকে বিরক্ত করত। কিন্তু ছাত্রীর বাবা স্কুলে সংশ্লিষ্ট থাকায় ভয়ে মুখ খুলতেন না। কিন্তু এবার ঘটনাটি চরম পর্যায়ে চলে যাওয়ার অভিযোগ করতে বাধ্য হয়েছেন। তারা এ ঘটনায় দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেছেন।

পরে ঘটনা তদন্তে সোমবার সদরপুরের ইউএনও পুরবী গোলদার ওই স্কুলে যান। শিক্ষার্থী ও শিক্ষকসহ অনেকের সঙ্গে কথা বলেন। এসময় স্কুলে জরুরি সভা অনুষ্ঠিত হয়।

এ প্রসঙ্গে ইউএনও বলেন, প্রাথমিক তদন্তে সত্যতা পাওয়া যাওয়ায় ওই দুই শিক্ষককে সাময়িক বহিস্কার করা হয়েছে। ঘটনা তদন্তে মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা, সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও স্কুলের পরিচালনা পর্ষদের সভাপতির সমন্বয়ে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। তদন্তে দোষী প্রমাণিত হলে পরবর্তী ব্যাবস্থা নেয়া হবে।

এদিকে এ ঘটনায় সদরপুর থানার এসআই (তদন্ত) আবুল খায়ের বলেন, এখন পর্যন্ত কেউ অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যাবস্থা নেয়া হবে।

আলোকিত লক্ষ্মীপুর
আলোকিত লক্ষ্মীপুর
সারাবাংলা বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর
//