ব্রেকিং:
দেশ-বিদেশ যেখান থেকেই হোক, গুজব ছড়ালে ব্যবস্থা : তথ্যমন্ত্রী কোভিড-১৯ টেস্ট: সরকারের পূর্ণ সহযোগিতা পাচ্ছে গণস্বাস্থ্য করোনা সংকট সামলাতে ডিজিটাল ম্যাপ সমৃদ্ধের উদ্যোগ শবেবরাতের মাহাত্ম্যে মানবকল্যাণে প্রধানমন্ত্রীর আহ্বান চীনের কাছে চিকিৎসক-ভেন্টিলেটর চেয়েছে বাংলাদেশ, সহায়তার আশ্বাস চীন থেকেই চালু হয় হারেমে একাধিক রক্ষিতা রাখার প্রথা! ধর্ষণে ব্যর্থ হয়ে কলেজছাত্রীকে কীটনাশক খাইয়ে হত্যার চেষ্টা অনলাইনে পরীক্ষা ও ভর্তি বন্ধে ইউজিসি’র আহ্বান করোনা ঠেকাতে স্বেচ্ছায় লকডাউনে তিনগ্রাম স্বাস্থসেবীদের জন্য সিএমপি`র ফ্রি বাস সার্ভিস দেশের জন্য আগামী ৩০ দিন আরো ঝুঁকিপূর্ণ: স্বাস্থ্যমন্ত্রী ওষুধের দোকান ছাড়া সন্ধ্যার পর সব বন্ধ রাখার নির্দেশ করোনায় আর্থিক সহায়তা পাচ্ছে জার্মানরা কমলনগরে সূর্যের হাসি ক্লিনিকটি বন্ধ গত ১০ দিন করোনা সংকট: দুর্নীতির শঙ্কায় বিএনপিকে না বললেন ড. ইউনূস করোনা আতঙ্কে বন্দুক কিনছে মার্কিনিরা ৯ মিনিটের জন্য অন্ধকারে ভারত এসএসসির ফল চলে যাবে অভিভাবকদের মোবাইলে রাসূলকে (সা.) স্বপ্নে দেখার আমল খাবার নিয়ে অসহায় মানুষের সৌরভ গাঙ্গুলি
  • শুক্রবার   ১০ এপ্রিল ২০২০ ||

  • চৈত্র ২৭ ১৪২৬

  • || ১৬ শা'বান ১৪৪১

২৮

বসন্তের বাতাসে ভেসে বেড়াচ্ছে চিকেন পক্সের ভাইরাস

আলোকিত লক্ষ্মীপুর

প্রকাশিত: ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০  

বসন্তের শেষেই গ্রীষ্ম এসে হাজির হবে। শীতকাল শেষ হতে এখনো বাকি মাসখানেক। এরই মধ্যে গরমের আবির্ভাব ঘটেছে। এসময় শারীরিক বিভিন্ন সমস্যা দেখা দেয়।

সর্দি কাশি ও জ্বর এসময় সাধারণ বিষয়। ছোট থেকে বড় সবাই এসবে ভুগে থাকেন। তবে বসন্তে চিকেন পক্স হওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যায়। কারণ এসময় বাতাসে ভেসে বেড়ায় ভেরেসেলা জোস্টার ভাইরাস। যা পক্সের জন্য দায়ী। 

শুধু বসন্তেই নয়, বছরের যে কোনো সময়ও এই রোগটি হতে পারে। তবে বছরের প্রথম ছয় মাস অর্থাৎ জানুয়ারি থেকে জুন পর্যন্ত এই রোগের প্রকোপ বেড়ে যায়। আবহাওয়ার পরিবর্তনের কারণেই এই রোগটি হানা দেয় শরীরে।

চিকেন পক্সে আক্রান্ত হওয়ার লক্ষণ

প্রাথমিক ভাবে জ্বর হয়। ক্রমশ জ্বরের মাত্রা বাড়তে থাকে। পাশাপাশি শরীর ব্যথা ও ফুসকুড়ি বের হয় সঙ্গে চুলকানি। প্রথমে পেটে বা পিঠে এরপর মুখে এভাবে পুরো শরীরে ফুসকুড়ি ছড়িয়ে পড়ে। এসব ফুসকুড়ি ফোস্কার মতো আকার নেয় এরপর পুঁজের মতো হয়। ৭ থেকে ১০ দিন পর থেকে তা শুকাতে থাকে। চিকেন পক্সে শরীর অত্যন্ত দুর্বল হয়ে পরে।

পক্স বা গুঁটিবসন্ত রোগটি ছোঁয়াচে ধাঁচের। দ্রুত আক্রান্ত ব্যক্তি থেকে আশেপাশের মানুষের দেহে রোগটি ছড়িয়ে পরে। সাধারণত আক্রান্ত ব্যক্তির হাঁচি, কাশি বা থুতুর সঙ্গে ভাইরাসটি ছড়ায়। এমনকি আক্রান্ত রোগীর সংস্পর্শে এলেও পক্স ছড়াতে পারে। এই ভাইরাসটি শরীরে প্রবেশের অন্তত ১৪ থেকে ২১ দিনের মধ্যে লক্ষণগুলো দেখা দিতে শুরু করে। 

আলোকিত লক্ষ্মীপুর
আলোকিত লক্ষ্মীপুর
স্বাস্থ্য বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর
//