ব্রেকিং:
লক্ষ্মীপুরে করোনা উপসর্গে প্রবাসীর মৃত্যু! লক্ষ্মীপুরে কৃষকের ধান কেটে দিলেন নির্বাহী কর্মকর্তা লক্ষ্মীপুরে করোনা রোগী ৩৭ জন : নতুন করে শিশুসহ আক্রান্ত ৩ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক করোনায় আক্রান্ত করোনার তাণ্ডবে প্রাণ গেল ২ লাখ ১১ হাজার মানুষের মারা যাওয়া তরুণের করোনা নেগেটিভ, তিন ভাই বোনের পজেটিভ লক্ষ্মীপুরে কৃষকের ধান কেটে বাড়ি পৌঁছে দিল এডভোকেট নয়ন লক্ষ্মীপুরে ত্রাণের সাথে ঘরও পেল লুজি মানসম্মত কোন ধাপ অতিক্রম করেনি গণস্বাস্থ্যের কিট পরিস্থিতি ঠিক না হলে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত সব স্কুল-কলেজ বন্ধ বিভিন্ন থানার পুলিশ সদস্যদের সাথে পুলিশ সুপারের ভিডিও কনফারেন্স লক্ষ্মীপুরে আরো ৩ জনের করোনা পজেটিভ আপনিকি করোনা পরীক্ষায় গণস্বাস্থ্যকেন্দ্রের কিট ব্যবহারের বিপক্ষে? লক্ষ্মীপুরে ধান কেটে কৃষকের ঘরে পৌঁছে দিল ছাত্রলীগ লক্ষ্মীপুরে ২০০০ পরিবার পেল উপহার সামগ্রী কমলনগরে করোনা উপসর্গে একজনের মৃত্যু, এক বাড়ি লকডাউন ধান কেটে বাড়ি পৌঁছে দিলো ছাত্রলীগ, কৃষকের মুখে হাসি ভবানীগঞ্জে কর্মহীন পরিবহণ শ্রমিকদের মাঝে সদর এমপি’র ত্রাণ বিতরণ করোনায় মৃতের সংখ্যা ১ লাখ ৯২ হাজার ছাড়ালো লক্ষ্মীপুরে লকডাউন অবস্থায় অসুস্থ যুবকের মৃত্যু : নমুনা সংগ্রহ
  • শুক্রবার   ০৫ জুন ২০২০ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ২২ ১৪২৭

  • || ১২ শাওয়াল ১৪৪১

৬৫

ভারতে ‘ডাইনি’ অপবাদে হত্যাকাণ্ড চলছেই

আলোকিত লক্ষ্মীপুর

প্রকাশিত: ১ ডিসেম্বর ২০১৯  

ভারতের নানা অঞ্চলে ডাইনি অপবাদে নারী-পুরুষদের পিটিয়ে বা কুপিয়ে হত্যা করা হচ্ছে। কুসংস্কারের কারণে এসব হতাহতের ঘটনা মধ্য, পূর্ব ও উত্তর-পূর্বাঞ্চলে বেশী পরিমাণে ঘটেছে। খবর- ওয়ান ইন্ডিয়া।

ভারতের সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী চন্দ্র মোহন পাটোয়ারি জানান, শুধু আসামে ২০১১ সাল থেকে এখন পর্যন্ত ১০৭ জনকে ডাইনি সন্দেহে খুন করা হয়েছে। ২০১৬ সালের মে মাস পর্যন্ত ৮৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। আর ২০১৯ সালের অক্টোবর মাস পর্যন্ত আরো ২৩ জনকে একই কারণে হত্যা করা হয়েছে।

ভারতের স্থানীয় সংবাদমাধ্যমগুলো জানায়, আসামের কোকরাঝাড়, চিরাং এবং উডালগৌরি জেলায় ডাইনি সন্দেহে হত্যার ঘটনা সবচেয়ে বেশি। কোকরাঝাড়ে এখন পর্যন্ত ২২ জনকে হত্যা করা হয়েছে। 

এছাড়া চিরাং জেলায়  ১৯ জনকে খুন করা হয়েছে। আর উডালগৌরি জেলায় ১১ জনকে খুন করা হয়েছে। বিশ্বনাথে নয়জনের মৃত্যু হয়েছে। গোয়াল পাড়ায় সাতজন, নগাঁওয়ে ছয়জন এবং তিনসুকিয়ায় ছয়জনকে খুন করা হয়েছ। কার্বি আংলং এবং মাজুলিতে চারজনকে খুন করা হয়েছে।

শুধু নারীরাই নয়, পুরুষরাও এই কুসংস্কারের বলি হয়েছেন আসামে। ২০১৬ সালের মে মাসের পর থেকে যে ২৩ জনকে ডাইনি সন্দেহে খুন করা হয়েছে তার মধ্যে ১২ জন পুরুষ এবং ১১ জন নারী। 

এদিকে এই কুসংস্কার নিয়ন্ত্রণে আইন তৈরি হয়েছে। কিন্তু সচেতনতার অভাবে সেটা কোনোভাবেই নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব হচ্ছে না। সরকারের পক্ষ থেকেও তেমন সচেতনতা প্রচার অভিযান চালানো হয়নি। 

আলোকিত লক্ষ্মীপুর
আলোকিত লক্ষ্মীপুর
আন্তর্জাতিক বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর
//