ব্রেকিং:
লক্ষ্মীপুর সদরে পৌনে ১৮ হাজার মণ ধান কেনা শুরু ১০টি ভ্যাকসিন যেকোনো বয়সের নারী ও পুরুষের জন্য খুবই জরুরি পাকিস্তান যেতে ক্রিকেটারদের জোর করা হবে না: পাপন উত্তাল পশ্চিমবঙ্গ, পাঁচ ট্রেন ও ১৫ বাসে আগুন স্টামফোর্ড ছাত্রী রুম্পার মৃত্যু: মেলেনি ধর্ষণের আলামত জিয়া ছিলেন মোস্তাকের সবচেয়ে বিশ্বস্ত: প্রধানমন্ত্রী রাজাকারদের তালিকা প্রকাশ হবে আজ কোন উপজেলা কখন হানাদার মুক্ত হয় ? লক্ষ্মীপুরে শ্রেষ্ঠ সহকারী শিক্ষক টুটুল মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানির অভিযোগ মাত্র ৪ ঘণ্টার ২৬ প্রার্থী মনোনয়ন সংগ্রহ মাদকের বিরুদ্ধে গ্রামবাসীর সমাবেশ প্রেসক্লাবের নির্বাচনী তফসিল ঘোষণা দেশীয় অস্ত্রসহ আন্তঃজেলা ডাকাত দল আটক শিশুদের মসজিদে প্রবেশে বাধা নয়, উৎসাহ দিন বাড়ি বাড়ি গিয়ে কম্বল দিচ্ছেন ডিসি মাদকবিরোধী জনসচেতনতায় ‘ফানুস’ ভারতের নতুন নাগরিকত্ব আইন বৈষম্যমূলক: জাতিসংঘ খুলনার পাটকল শ্রমিকদের অনশন স্থগিত শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস আজ

রোববার   ১৫ ডিসেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ৩০ ১৪২৬   ১৭ রবিউস সানি ১৪৪১

২২

মহারাষ্ট্রে রাষ্ট্রপতির শাসন জারি

প্রকাশিত: ১৩ নভেম্বর ২০১৯  

সব নাটকীয়তার অবসান ঘটিয়ে ভারতের মধ্য-পশ্চিমাঞ্চলীয় রাজ্য মহারাষ্ট্রে রাষ্ট্রপতির শাসন জারি করা হয়েছে। রাজ্যটিতে সরকার গঠণে কোনো দলই সমর্থ হতে না পারায় গভর্নর ভগৎ সিং’য়ের প্রতিবেদনের প্রেক্ষিতে নেয়া হয়েছে এ সিদ্ধান্ত।

এর আগে রাজ্যের ক্ষমতাসীন দল বিজেপি, তাদের জোট সঙ্গী শিবসেনা ও ন্যাশনালিস্ট কংগ্রেস পার্টিকে তিন দফায় সরকার গঠনের আহ্বান জানানো হলেও নির্ধারিত সময়ের মধ্যে সবাই সংখ্যাগরিষ্ঠতা প্রমাণে ব্যর্থ হয়।

সর্বশেষ ও তৃতীয় দল হিসেবে এনসিপি নির্ধারিত সময়ে মধ্যে সরকার গঠনে ব্যর্থ হলে  ভগৎ সিং কোশারি রাষ্ট্রপতিকে এই শাসন জারির অনুরোধ করেন বলে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম ইন্ডিয়া টুডে  জানিয়েছে। এর আগে জরুরি বৈঠক করে রাজ্যপালকে রাষ্ট্রপতি শাসনের সুপারিশ করে।

এর আগে মুখ্যমন্ত্রিত্ব ভাগাভাগি নিয়ে বনিবনা না হওয়ার দীর্ঘদিনের জোট শরিকে শিবসেনাকে নিয়ে প্রথমে সরকার গঠনে ব্যর্থ হয় কেন্দ্রে ক্ষমতাসীন বিজেপি। তারপর দ্বিতীয় সর্বোচ্চ আসনে বিজয়ী দল শিবসেনাকে সরকার গঠনের আহ্বান জানালে তারাও ব্যর্থ হয়। সর্বশেষ এনসিপিও ব্যর্থ হলো।

তবে বিজেপি সরকার গঠনের সময়সীমা বৃদ্ধির আবেদন না করলেও পরবর্তী দুই দল শিবসেনা ও এনসিপি সরকারের গঠনের নির্ধারিত সময়সীমা বাড়ানোর অনুরোধ করলে রাজ্যপাল তা দিতে অস্বীকৃতি জানান। বিজেপি ব্যর্থ হওয়ার পর কংগ্রেসে সরকার গঠনে চালকের আসনে আসীন হয়।

বিজেপির পর সরকার গঠনের সুযোগ পাওয়া শিবসেনা কংগ্রেস ও এনসিপির সমর্থন পাওয়ার জোর তদবির চলানো শুরু করে। এনসিপি শর্ত দেয় যদি বিজেপি নেতৃত্বাধীন ক্ষমতাসীন জোট এনডিএ থেকে শিবসেনা বেরিয়ে আসে তাহলে তারা সমর্থন দেবে। শর্ত অনুযায়ী মোদির মন্ত্রিসভার একমাত্র শিবসেনার একমাত্র মন্ত্রী পদত্যাগও করেন। কিন্তু কংগ্রেসে সমর্থন না দেয়ায় তারা সরকার গঠন করতে পারেনি শেষ পর্যন্ত।

শিবসেনা ব্যর্থ হওয়ার পর গতকাল রাজ্যপাল ভি এস কোশারি তৃতীয় সংখ্যাগরিষ্ঠ দল হিসেবে এনসিপিকে সংখ্যাগরিষ্ঠতা প্রমাণের আমন্ত্রণ জানায়। তাদের জন্য সময় নির্ধারণ করা হয় আজ রাত ৯টা পর্যন্ত। কিন্তু বিকেলে কংগ্রেস সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধীর সঙ্গে বৈঠকে বসেন এনসিপি প্রধান শারদ পাওয়ার।

সেই বৈঠক থেকেও ইতিবাচক কোনো সমাধানে পৌঁছাতে ব্যর্থ হয় উভয় দল। তারপর নির্ধারিত সময়ের আগেই রাষ্ট্রপতিকে তার শাসন জারির জন্য অনুরোধ করেন মহারাষ্ট্রের রাজ্যপাল। রামনাথ কোবিন্দ রাজ্যপালের সুপারিশের ভিত্তিতে রাজ্যটিতে রাষ্ট্রপতি শাসন জারি করলেন।

গত ২৪ অক্টোবর মহারাষ্ট্রের প্রাদেশিক নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছিল। ২৮৮ আসন বিশিষ্ট প্রাদেশিক পরিষদে কোনো দলই এককভাবে সংখ্যাগরিষ্ট পায়নি। বিজেপি ১০৫, শিবসেনা, এনসিপি ৫৪ ও কংগ্রেস ৪৪টি আসনে জয়লাভ করে। সরকার গঠনে প্রয়োজন ছিল ১৪৫টি আসন।

আলোকিত লক্ষ্মীপুর
আলোকিত লক্ষ্মীপুর
এই বিভাগের আরো খবর
//