ব্রেকিং:
লক্ষ্মীপুরে করোনা উপসর্গে প্রবাসীর মৃত্যু! লক্ষ্মীপুরে কৃষকের ধান কেটে দিলেন নির্বাহী কর্মকর্তা লক্ষ্মীপুরে করোনা রোগী ৩৭ জন : নতুন করে শিশুসহ আক্রান্ত ৩ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক করোনায় আক্রান্ত করোনার তাণ্ডবে প্রাণ গেল ২ লাখ ১১ হাজার মানুষের মারা যাওয়া তরুণের করোনা নেগেটিভ, তিন ভাই বোনের পজেটিভ লক্ষ্মীপুরে কৃষকের ধান কেটে বাড়ি পৌঁছে দিল এডভোকেট নয়ন লক্ষ্মীপুরে ত্রাণের সাথে ঘরও পেল লুজি মানসম্মত কোন ধাপ অতিক্রম করেনি গণস্বাস্থ্যের কিট পরিস্থিতি ঠিক না হলে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত সব স্কুল-কলেজ বন্ধ বিভিন্ন থানার পুলিশ সদস্যদের সাথে পুলিশ সুপারের ভিডিও কনফারেন্স লক্ষ্মীপুরে আরো ৩ জনের করোনা পজেটিভ আপনিকি করোনা পরীক্ষায় গণস্বাস্থ্যকেন্দ্রের কিট ব্যবহারের বিপক্ষে? লক্ষ্মীপুরে ধান কেটে কৃষকের ঘরে পৌঁছে দিল ছাত্রলীগ লক্ষ্মীপুরে ২০০০ পরিবার পেল উপহার সামগ্রী কমলনগরে করোনা উপসর্গে একজনের মৃত্যু, এক বাড়ি লকডাউন ধান কেটে বাড়ি পৌঁছে দিলো ছাত্রলীগ, কৃষকের মুখে হাসি ভবানীগঞ্জে কর্মহীন পরিবহণ শ্রমিকদের মাঝে সদর এমপি’র ত্রাণ বিতরণ করোনায় মৃতের সংখ্যা ১ লাখ ৯২ হাজার ছাড়ালো লক্ষ্মীপুরে লকডাউন অবস্থায় অসুস্থ যুবকের মৃত্যু : নমুনা সংগ্রহ
  • শুক্রবার   ০৭ আগস্ট ২০২০ ||

  • শ্রাবণ ২৩ ১৪২৭

  • || ১৬ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

৫৩১

মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানির অভিযোগ

আলোকিত লক্ষ্মীপুর

প্রকাশিত: ১৪ ডিসেম্বর ২০১৯  

লক্ষ্মীপুরে মিথ্যা মামলা দিয়ে সাদ্দাম হোসেন (২৬) নামে এক যুবককে হয়রানি করার অভিযোগ করেছে ভুক্তভোগী পরিবার। বিষয়টি নিয়ে এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তি ও মুসল্লীরা ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। এসময় মিথ্যা মামলা থেকে সাদ্দাম হোসেনকে মুক্তির দাবি জানান তারা।

১৩ ডিসেম্বর শুক্রবার বাদ জুম্মা লক্ষ্মীপুর সদর উপজলার পূর্ব চররুহিতা গ্রামের ছানা উল্যাহ হাওলাদার জামে মসজিদের মুসল্লীরা ক্ষোভ প্রকাশ করে মিথ্যা মামলা থেকে অব্যহতির দাবি জানান। ভুক্তভোগী সাদ্দাম ওই গ্রামের মোঃ হানিফ এর ছেলে।

এলাকাবাসী ও ভুক্তভোগী পরিবার জানান, চররুহিতা গ্রামের আবুল কালাম আজাদ গং দের সাথে মোঃ হানিফের মধ্যে জমি সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে বিরোধ চলে আসছে দীর্ঘদিন যাবত। এনিয়ে গত ৭ অক্টোবর ২০১৮ ইং তারিখে নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট আদালত, সদর-লক্ষ্মীপুরে (মিছ ২০৬/২০১৮) অভিযোগ দায়ের করেন মোঃ হানিফ। ওই মামলায় আবুল কালাম আজাদ, মমিন উল্যাহ ও নাজমা বেগমকে বিবাদী করা হয়। এতে আবুল কালাম আজাদ ক্ষিপ্ত হয়ে তার মেয়ে নাজমাকে দিয়ে পরের মাসে ২৬ নভেম্বর ২০১৮ইং তারিখে লক্ষ্মীপুর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে (৩৯৯/১৮) অভিযোগ দায়ের করেন। ওই মামলায় সাদ্দাম কারাগারে রয়েছে।

গ্রামের ইউপি সদস্য, গ্রামবাসী বেলায়েত হোসেন সহ স্থানীয় মুসল্লীরা জানান, তাদের মধ্যে জমিজমা নিয়ে বিরোধ চলছে। এনিয়ে আমরা সালিশী বৈঠক করেছি। এর পরও মিথ্যা মামলা দিয়ে নির্দোষ সাদ্দামকে ফাঁসিয়ে দিয়েছে বলে দাবি করা হয়। এ বিষয়ে নিন্দাও জানান তারা।

মামলার স্বাক্ষী আবদুল করিম ও মোঃ হারুন নোটারী পাবলিকের মাধ্যমে ঘোষনা দিয়েছেন, সাদ্দাম এমন ধরনের ঘটনা ঘটিয়েছে মর্মে তারা শুনে নাই। এছাড়া ঘটনাস্থলে তারা ছিলো না বলেও (এফিডেভিট নং-৫৬, তাং-০৯ নভেম্বর ২০১৯) ঘোষনা দেন।

গ্রামের মাতাব্বর ইসমাইল হোসেন জানান, সাদ্দাম নির্দোষ, যে ঘটনা দেখিয়ে তারা নারী নির্যাতন মামলা দিয়েছে, আসলে এখানে এই ধরনের কোনো ঘটনাই ঘটেনি। একটি কুচক্রী মহলের ইশারায় মিথ্যা নারী নির্যাতন মামলায় সাদ্দামকে ফাঁসিয়ে দিয়েছে তারা। আমরা এর প্রতিকার চাই।

জানতে চাইলে মামলার বাদী নাজমা আক্তারের বাবা আবুল কালাম আজাম গণমাধ্যম কর্মীদের জানান, ঘটনা সম্পর্কে আমি কিছু জানিনা। নাজমা কেনো মামলা করেছে সেটা সে বলতে পারবো না। তবে নাজমা বাড়ীতে না থাকায় তার বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি।

আলোকিত লক্ষ্মীপুর
আলোকিত লক্ষ্মীপুর
লক্ষ্মীপুর বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর
//