ব্রেকিং:
নতুন বছরেই আকাশে দেখা যাবে ‘ফেইক মুন’ মন্দিরে পুরোহিতের বদলে মন্ত্র পড়াচ্ছে রোবট! ভাঙনেও থেমে নেই মাটি কাটা লোভনীয় চাকরি ছেড়ে বাইক নিয়ে দেশ-বিদেশ ঘুরে বেড়াচ্ছেন তরুণী পানিতে ডুবে শিশুর করুন মৃত্যু শিশুর পানিশূন্যতার লক্ষণ ও করণীয় পাকা চুল টেনে তুলে অজান্তেই নিজের ক্ষতি করছেন? অবকাঠামো সংকটে বেহাল লক্ষ্মীপুর বিসিক রামগতিতে আগুনে ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে ঢেউটিন বিতরণ পেট্রোবাংলা ভবনের আগুন নিয়ন্ত্রণে রামগঞ্জে নারীর ক্ষমতায়নে উঠান বৈঠক লক্ষ্মীপুরে ৭’শ শিক্ষার্থীর অংশগ্রহণে বৃত্তি পরীক্ষা উপজেলা বিএমজিটিএ’র সম্মেলন অনুষ্ঠিত লক্ষ্মীপুরে আইডিয়াল ফাউন্ডেশনের বৃত্তি পেল ৪০০ শিক্ষার্থী চুরি ঠেকাতে দিন-রাত পেঁয়াজ ক্ষেতে প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে বিশ্ব ক্যারমে পঞ্চম হেমায়েত মোল্লা বিয়ের আগে একমাত্র কন্যাকে নিয়ে স্মৃতিচারণ মিথিলার চর মার্টিনে নেতৃত্বে আসতে চান বেলায়েত সকল সমুদ্র বন্দরের সংযোগ নেটওর্য়াক হবে ভোলা-লক্ষ্মীপুর সেতু লক্ষ্মীপুরে গুলিবিদ্ধ দুই যুবকের মরদেহ উদ্ধার

রোববার   ০৮ ডিসেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ২৩ ১৪২৬   ১০ রবিউস সানি ১৪৪১

৬২৪

রামগঞ্জে ফরম পূরণে অতিরিক্ত ফি আদায়

প্রকাশিত: ২৬ নভেম্বর ২০১৯  

লক্ষ্মীপুর জেলার রামগঞ্জ উপজেলায় এসএসসি ও দাখিল পরীক্ষার ফরম পূরণে অতিরিক্ত টাকা আদায়রে অভিযাগ উঠেছে। ৩৪ টি মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে প্রায় দুই হাজার পরীক্ষার্থী ও ৩১টি মাদ্রাসা থেকে প্রায় এক হাজার দুইশত পরীক্ষার্থী ২০২০ইং সালের ফেব্রুয়ারি মাসে এসএসসি ও দাখিল পরীক্ষায় অংশ নেবে।
স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, চলতি বছর এসএসসি ও দাখিল পরীক্ষার এবার ফরম পূরনের জন্য মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড ও কেন্দ্র খরচ বাবদ নিয়মিত পরীক্ষার্থীদের জন্য মানবকি ও ব্যবসা শিক্ষা বিভাগে ১,৮৫০ টাকা, বিজ্ঞান বিভাগে ১৯৭০ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে।এর সাথে বিলম্ব হলে আরও ১০০ টাকা যোগ করা হয়েছে। অভিবাবকদের অভিযোগ, রামগঞ্জের প্রত্যেক মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ফরম পূরনের ফি ৪,০০০ টাকা থেকে  ৪,৫০০ টাকা ও মাদ্রাসা গুলিতে ২,৫০০থেকে ৩,৫০০ টাকা পর্যন্ত আদায় করা হয়েছে।
ফরম পূরনের অতিরিক্ত টাকা যোগাড় করতে শ্রমজীবী ও দরিদ্র পরিবারের অভিভাবকদের হিমশিম খেতে হচ্ছে। ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী, অভিভাবকরা ক্ষোভের কথা জানালেও শিক্ষকদের মনে কষ্টদিলে ছাত্র/ছাত্রী ভালো ফলাফল করতে পারবেনা ভেবে এবং  ঝামেলার ভয়ে তারা নাম প্রকাশ করতে চাচ্ছে না।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন শিক্ষক জানান, বোর্ড ফি, কোচিং ফি, ফরম পূরণ সংক্রান্ত কাজে শিক্ষকদের শিক্ষা বোর্ডে যাতায়াত, প্রতিষ্ঠানের উন্নয়ন কাজ, মডেল টেস্ট, অনলাইনে ফরম পূরনের খরচসহ বিবিধ খাতে পরীক্ষার্থীদের কাছ থেকে ওই অতিরিক্ত টাকা আদায় করে ভাগভাটোয়ারা করে নিচ্ছেন প্রতিষ্ঠান প্রধানরা।
মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি রফিকুল ইসলাম জানান, স্ব স্ব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক ও ম্যনেজিং কমিটির লোকজন আলোচনা ক্রমে ফি নির্ধারন করেছেন। এখানে আমার কিছু করার নাই।
এ ব্যাপারে উপজেলা মাধ্যমকি শিক্ষা কর্মকর্তা মনজির রশিদ বলনে, স্কুলে স্কুলে গিয়ে খবর নেওয়া সম্ভব নয়। তারপরও যদি কেউ অভিযোগ করে  তাহলে খবর নিয়ে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা  মুনতাসীন জাহান জানান, ফরম পূরণে অতিরিক্ত টাকা আদায়রে সুযোগ নেই। যদি কেউ অতিরিক্ত টাকা নিয়ে থাকে তাহলে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আলোকিত লক্ষ্মীপুর
আলোকিত লক্ষ্মীপুর
এই বিভাগের আরো খবর
//