ব্রেকিং:
রামগঞ্জে ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ও পুরস্কার বিতরণ লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জে স্কুল ছাত্রকে পিটিয়ে জখম রামগঞ্জের ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মামলা, তদন্তে পিবিআই লক্ষ্মীপুরে আইনজীবি সহকারিদের মানববন্ধন যুব সমাজের উদ্যেগে গ্রামের রাস্তায় বাতির ব্যবস্থা। বৈধ সড়কে অবৈধ ভাবে চলছে সড়কের শত্রু দৈত্যাকৃতির দানব গাড়ী লাহারকান্দীতে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রের শুভ উদ্বোধন কমলনগরে নারী ইউপি মেম্বারের ঘরে অসামাজিক কাজ, আটক-৮ প্রজনন ক্ষমতা কমায় কয়েলের ধোঁয়া! হজ পালন করতে সাইকেল চালিয়ে মক্কায় ১১ বছরের গ্যাস মজুত আছে: সংসদে নসরুল ইসরায়েলের বিরুদ্ধে খুতবা, আল আকসার খতিব বরখাস্ত ফের মার্কিন দূতাবাসের কাছে ৩ দফায় রকেট হামলা চিকিৎসক-ডিগ্রি লাগাতে বিএমডিসির অনুমোদন লাগবে: হাইকোর্ট শেখ হাসিনা হত্যাচেষ্টায় পাঁচ জনের মৃত্যুদণ্ড লক্ষ্মীপুরে আবারও শ্রেষ্ঠ ওসি একেএম আজিজুর রহমান মিয়া কমলনগরে জোরপূর্বক স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর নিলেন যুবলীগ নেতা, সরকারি স্কুলে অযত্নে-অবহেলায় বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর ছবি লক্ষ্মীপুর হলি গার্লস স্কুলে পিঠা উৎসব ভারতেও ছড়াতে পারে চীনের ভাইরাস

মঙ্গলবার   ২১ জানুয়ারি ২০২০   মাঘ ৮ ১৪২৬   ২৫ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১

৫১০

রোগী আছে, ওষুধ নেই

প্রকাশিত: ৯ ডিসেম্বর ২০১৯  

লক্ষ্মীপুরের রায়পুর উপজেলা ৫০ শয্যা হাসপাতালে ওষুধ সংকট তীব্র আকার ধারণ করেছে। পাশাপাশি দুটি উপ-স্বাস্থ্যকেন্দ্রেরও একই অবস্থা। পাঁচ মাস ধরে এসব স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ওষুধ সরবরাহ বন্ধ রয়েছে। এতে গ্রামাঞ্চল থেকে প্রতিদিন প্রায় পাঁচ শতাধিক রোগী ওষুধ থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন।

এদিকে আবহাওয়া পরিবর্তনের কারণে জ্বর, পাতলা পায়খানা, ডায়রিয়া, সর্দি-কাশিসহ বিভিন্ন রোগী বেড়ে যাওয়ায় প্রতিদিনই এ হাসপাতালে রোগীর ভিড় দেখা যাচ্ছে। কিন্তু সরকারিভাবে রোগীদের ওষুধ দেয়া যাচ্ছে না।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও ইউপির দুটি উপ-স্বাস্থ্যকেন্দ্রের চাহিদা অনুযায়ী জুলাই মাসে সিভিল সার্জন বরাবর চিঠি দিয়ে ওষুধের বরাদ্দ চাওয়া হয়। কিন্তু পাঁচ মাসেও স্বাস্থ্য অধিদফতর থেকে এ বরাদ্দ না পাওয়ায় সিভিল সার্জন অফিস থেকে ওষুধ পাওয়া যাচ্ছে না। আগের মজুত থেকে কয়েক মাস কিছু ওষুধ দিয়ে ভর্তি রোগীদের সেবা চালালেও অ্যান্টিবায়োটিকসহ অনেক ওষুধ সংকট থাকায় চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। সরবরাহ ওষুধ এখনো না পাওয়ায় দুশ্চিন্তার মধ্যে রয়েছেন স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তৃপক্ষরাও।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক চিকিৎসক জানান, হাসপাতাল থেকে জানানো হয়েছে কোনো ধরনের ওষুধ ব্যবস্থাপত্রে লেখা যাবে না। কারণ ওষুধ নেই। এ জন্য চিকিৎসকরা ব্যবস্থাপত্রে ওষুধ লিখে বাইর থেকে সরবরাহের পরামর্শ দিচ্ছেন।

বামনী ইউপির রোকেয়া বেগমসহ কয়েকজন জানান, যে সমস্যা নিয়ে হাসপাতালে এসেছেন সে রোগের ওষুধ নেই। এত দূর থেকে গাড়ি ভাড়া দিয়ে ডাক্তার দেখাতে আসছেন। কিন্তু সরকারি ওষুধ না পেয়ে হতাশ হয়ে বাড়ি ফেরেন তারা।

উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. জাকির হোসেন বলেন, জুলাই থেকে হাসপাতাল ও উপ-স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ওষুধ সরবরাহ বন্ধ থাকায় নানা প্রশ্নের মুখোমুখি হতে হচ্ছে। ওষুধের চাহিদা জানিয়ে সংশ্লিষ্ট দফতরে কয়েক দফা চিঠি দেয়া হয়েছে। কিন্তু ওষুধের সরবরাহ মিলছে না। প্রতিদিন এ হাসপাতালে আউটডোর ও ইনডোরে চার থেকে পাঁচশ রোগী নিতে আসেন। কিন্তু হাসপাতালে কোনো ওষুধ নেই।

লক্ষ্মীপুরের সিভিল সার্জন ডা. মো. আব্দুল গফ্ফার বলেন, এখানে জুলাইয়ের পর কোনো ওষুধ সরবরাহ করা হয়নি। এ কারণেই ওষুধের সংকট দেখা দিয়েছে। এটা শুধু লক্ষ্মীপুরে নয়, সারাদেশের একই অবস্থা।

আলোকিত লক্ষ্মীপুর
আলোকিত লক্ষ্মীপুর
এই বিভাগের আরো খবর
//