ব্রেকিং:
লক্ষ্মীপুরে করোনা উপসর্গে প্রবাসীর মৃত্যু! লক্ষ্মীপুরে কৃষকের ধান কেটে দিলেন নির্বাহী কর্মকর্তা লক্ষ্মীপুরে করোনা রোগী ৩৭ জন : নতুন করে শিশুসহ আক্রান্ত ৩ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক করোনায় আক্রান্ত করোনার তাণ্ডবে প্রাণ গেল ২ লাখ ১১ হাজার মানুষের মারা যাওয়া তরুণের করোনা নেগেটিভ, তিন ভাই বোনের পজেটিভ লক্ষ্মীপুরে কৃষকের ধান কেটে বাড়ি পৌঁছে দিল এডভোকেট নয়ন লক্ষ্মীপুরে ত্রাণের সাথে ঘরও পেল লুজি মানসম্মত কোন ধাপ অতিক্রম করেনি গণস্বাস্থ্যের কিট পরিস্থিতি ঠিক না হলে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত সব স্কুল-কলেজ বন্ধ বিভিন্ন থানার পুলিশ সদস্যদের সাথে পুলিশ সুপারের ভিডিও কনফারেন্স লক্ষ্মীপুরে আরো ৩ জনের করোনা পজেটিভ আপনিকি করোনা পরীক্ষায় গণস্বাস্থ্যকেন্দ্রের কিট ব্যবহারের বিপক্ষে? লক্ষ্মীপুরে ধান কেটে কৃষকের ঘরে পৌঁছে দিল ছাত্রলীগ লক্ষ্মীপুরে ২০০০ পরিবার পেল উপহার সামগ্রী কমলনগরে করোনা উপসর্গে একজনের মৃত্যু, এক বাড়ি লকডাউন ধান কেটে বাড়ি পৌঁছে দিলো ছাত্রলীগ, কৃষকের মুখে হাসি ভবানীগঞ্জে কর্মহীন পরিবহণ শ্রমিকদের মাঝে সদর এমপি’র ত্রাণ বিতরণ করোনায় মৃতের সংখ্যা ১ লাখ ৯২ হাজার ছাড়ালো লক্ষ্মীপুরে লকডাউন অবস্থায় অসুস্থ যুবকের মৃত্যু : নমুনা সংগ্রহ
  • রোববার   ০৭ জুন ২০২০ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ২৪ ১৪২৭

  • || ১৪ শাওয়াল ১৪৪১

১২৭

১ম বর্ষের খাতা দেখছেন প্রভাষকের ৩য় বর্ষের শ্যালিকা

আলোকিত লক্ষ্মীপুর

প্রকাশিত: ২৪ অক্টোবর ২০১৯  

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অনেক ছাত্র-ছাত্রীর অভিযোগ রয়েছে যে, তারা পরীক্ষা অনুযায়ী আশানুরুপ ফল পান না। আবার অনেকেই প্রত্যাশার চেয়ে বেশি নম্বর পাওয়ার অভিযোগটিও বেশ পুরনো। 

শিক্ষার্থীদের মতে, এর অন্যতম কারণের মধ্যে একটি হচ্ছে, খাতার সঠিক মূল্যায়ন না হওয়া। শিক্ষকেরা নিজেদের ব্যক্তিগত কাজে ব্যস্ত থেকে নিজের ছোট ভাই, সন্তান বা আত্নীয়স্বজনদের দিয়ে পরীক্ষার খাতা মূল্যায়ণ করান। 

এদিকে গণমাধ্যমেও এ ধরনের অনেক খবর আগেই এসেছে। তবে অনেকেই বলছেন, প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা না নেয়ায় কাজের কাজ কিছুই হচ্ছে না। 

তবে এবার সাতক্ষীরার তালা উপজেলায় এমনই এক ঘটনা ঘটেছে। জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে অনার্স প্রথম বর্ষের ‘স্বাধীন বাংলাদেশের অভ্যুদয়ের ইতিহাস’ বিষয়ের পরীক্ষার খাতা দেখছিলেন শিক্ষকের শ্যালিকা। 

শ্যালিকা সোমা মহলদার নিজেও ওই কলেজের অনার্স তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী। গত বুধবার দুপুরে বিষয়টি স্থানীয় সাংবাদিকদের চোখে পড়ে। 

পরে খোঁজ-খবর নিয়ে জানা যায়, তালা উপজেলার কুমিরা মহিলা ডিগ্রি কলেজের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের প্রভাষক আদিত্য ব্যানার্জির নামে আসা ওই খাতা তার শালিকা তৃতীয় বর্ষের ছাত্রী সোমা মহলদার দেখছিলেন।

এ সময় সোমা মহলদার সাংবাদিকদের জানান, তার দুলাভাই শিক্ষক আদিত্য ব্যানার্জী তাকে ৫০টি খাতা দেখে দেয়ার জন্য বলেছিলেন। তাই তিনি খাতাগুলো দেখে দিচ্ছেন। 

তবে শিক্ষক আদিত্য ব্যানার্জি বিষয়টি পুরোপুরি অস্বীকার করেন। তিনি বলেন, আমি চোখে কম দেখার কারণে বৃত্ত ভরাটের জন্য খাতাগুলো শালিকা সোমা মহালদারের কাছে দিয়েছি। 

এ বিষয়ে কুমিরা মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ লুৎফুনআরা জামান বলেন, কোনো শিক্ষকের বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ পাওয়া গেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

তালার ইউএনও মো. ইকবাল হোসেন বালেন, এ ধরনের কোনো অভিযোগ পেলে সংশ্লিষ্ট শিক্ষকের বিরুদ্ধে অবশ্যই আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

আলোকিত লক্ষ্মীপুর
আলোকিত লক্ষ্মীপুর
শিক্ষা বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর
//