ব্রেকিং:
চার বছর পর সচিবদের সঙ্গে বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী মাওলানা ত্বহার হোয়াটসঅ্যাপ-ভাইভার অন; বন্ধ মোবাইল ফোন কে এই মাওলানা ত্বহার ২য় স্ত্রী সাবিকুন নাহার? আওয়ামীলীগের ধর্মীয় উন্নয়নকে ব্যাহত করতে ত্বহা ষড়যন্ত্র স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের ছবি ব্যবহার করে ফেসবুকে প্রতারণা লক্ষ্মীপুরে করোনা উপসর্গে প্রবাসীর মৃত্যু! লক্ষ্মীপুরে কৃষকের ধান কেটে দিলেন নির্বাহী কর্মকর্তা লক্ষ্মীপুরে করোনা রোগী ৩৭ জন : নতুন করে শিশুসহ আক্রান্ত ৩ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক করোনায় আক্রান্ত করোনার তাণ্ডবে প্রাণ গেল ২ লাখ ১১ হাজার মানুষের মারা যাওয়া তরুণের করোনা নেগেটিভ, তিন ভাই বোনের পজেটিভ লক্ষ্মীপুরে কৃষকের ধান কেটে বাড়ি পৌঁছে দিল এডভোকেট নয়ন লক্ষ্মীপুরে ত্রাণের সাথে ঘরও পেল লুজি মানসম্মত কোন ধাপ অতিক্রম করেনি গণস্বাস্থ্যের কিট পরিস্থিতি ঠিক না হলে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত সব স্কুল-কলেজ বন্ধ বিভিন্ন থানার পুলিশ সদস্যদের সাথে পুলিশ সুপারের ভিডিও কনফারেন্স লক্ষ্মীপুরে আরো ৩ জনের করোনা পজেটিভ আপনিকি করোনা পরীক্ষায় গণস্বাস্থ্যকেন্দ্রের কিট ব্যবহারের বিপক্ষে? লক্ষ্মীপুরে ধান কেটে কৃষকের ঘরে পৌঁছে দিল ছাত্রলীগ লক্ষ্মীপুরে ২০০০ পরিবার পেল উপহার সামগ্রী
  • সোমবার ২৭ মে ২০২৪ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ১২ ১৪৩১

  • || ১৮ জ্বিলকদ ১৪৪৫

করোনাতে জাপানের চিকিৎসা ব্যবস্থা ভেঙে পড়ার শঙ্কা

আলোকিত লক্ষ্মীপুর

প্রকাশিত: ১৯ এপ্রিল ২০২০  

নতুন করে করোনাভাইরাস সংক্রমণের মাত্রা বেড়ে যাওয়ায় জাপানের চিকিৎসা ব্যবস্থা ভেঙে পড়তে পারে বলে সতর্ক করে দিয়েছেন দেশটির চিকিৎসকরা। দেশটির সরকারি কর্মকর্তারা বলেছেন, ভাইরাসের কারণে সৃষ্ট চাপের মুখে গুরুতর অসুস্থ রোগীদের চিকিৎসাসেবা দিতে পারছে না হাসপাতালের জরুরি বিভাগ।

করোনাভাইরাসের উপসর্গ নিয়ে এক রোগীকে অন্তত ৮০টি হাসপাতালে নেয়া হয়েছিল একটি অ্যাম্বুলেন্সে করে। কিন্তু কোনও হাসপাতালই এই রোগীকে নেয়নি। প্রথম দিকে প্রাণঘাতী এই ভাইরাস পরিস্থিতি জাপান নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়েছে বলে ধারণা করা হলেও দ্বিতীয় পর্যায়ের সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় দেশটির চিকিৎসকরা এখন হিমশিম খাচ্ছেন।

শনিবার এই দেশটিতে করোনা রোগীর সংখ্যা ১০ হাজার ছাড়িয়ে গেছে। করোনায় জাপানে এখন পর্যন্ত মারা গেছেন ২০০ জনের বেশি। তবে দেশটিতে করোনায় সবচেয়ে খারাপ পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে রাজধানী টোকিওতে।

স্বাস্থ্য ব্যবস্থার ওপর চাপ কমাতে জিপি সার্জারি বিভাগের চিকিৎসকরাও করোনাভাইরাস রোগী পরীক্ষার কাজে সহায়তা করছেন বলে জানিয়েছে দেশটির সরকারি কর্মকর্তারা। জেনারেল প্রাকটিশনার চিকিৎসকদের সংগঠনের উপপ্রধান কোনোশিন তমুরা বলেন, চিকিৎসা ব্যবস্থা ভেঙে পড়া ঠেকাতে এটা করা হচ্ছে।

তিনি বলেন, প্রত্যেকের সহায়তার হাত বাড়িয়ে দেয়া উচিত। অন্যথায় হাসপাতাল ব্যবস্থা ভেঙে পড়বে। এদিকে, দেশটির দুটি মেডিক্যাল সংস্থা বলছে, করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে অন্যান্য, গুরুতর রোগী ও জরুরি মেডিক্যাল সেবাদানের সক্ষমতা হ্রাস পেয়েছে।

তারা বলছে, হাসপাতালগুলো ইতোমধ্যে অন্য রোগীদের ফিরিয়ে দিতে শুরু করেছে। অন্যান্য দেশের চেয়ে করোনা রোগীর সংখ্যা জাপানে কম হওয়ার পরও এসব ঘটছে। অন্যদিকে, পর্যাপ্ত পরিমাণে ব্যক্তিগত সুরক্ষা সামগ্রীর ঘাটতি দেখা দেয়ায় জাপানের করোনা মোকাবিলা প্রস্তুতি ভালো নয় বলে অভিযোগ করেছেন চিকিৎসকরা।

আলোকিত লক্ষ্মীপুর
আলোকিত লক্ষ্মীপুর
//