ব্রেকিং:
চার বছর পর সচিবদের সঙ্গে বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী মাওলানা ত্বহার হোয়াটসঅ্যাপ-ভাইভার অন; বন্ধ মোবাইল ফোন কে এই মাওলানা ত্বহার ২য় স্ত্রী সাবিকুন নাহার? আওয়ামীলীগের ধর্মীয় উন্নয়নকে ব্যাহত করতে ত্বহা ষড়যন্ত্র স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের ছবি ব্যবহার করে ফেসবুকে প্রতারণা লক্ষ্মীপুরে করোনা উপসর্গে প্রবাসীর মৃত্যু! লক্ষ্মীপুরে কৃষকের ধান কেটে দিলেন নির্বাহী কর্মকর্তা লক্ষ্মীপুরে করোনা রোগী ৩৭ জন : নতুন করে শিশুসহ আক্রান্ত ৩ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক করোনায় আক্রান্ত করোনার তাণ্ডবে প্রাণ গেল ২ লাখ ১১ হাজার মানুষের মারা যাওয়া তরুণের করোনা নেগেটিভ, তিন ভাই বোনের পজেটিভ লক্ষ্মীপুরে কৃষকের ধান কেটে বাড়ি পৌঁছে দিল এডভোকেট নয়ন লক্ষ্মীপুরে ত্রাণের সাথে ঘরও পেল লুজি মানসম্মত কোন ধাপ অতিক্রম করেনি গণস্বাস্থ্যের কিট পরিস্থিতি ঠিক না হলে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত সব স্কুল-কলেজ বন্ধ বিভিন্ন থানার পুলিশ সদস্যদের সাথে পুলিশ সুপারের ভিডিও কনফারেন্স লক্ষ্মীপুরে আরো ৩ জনের করোনা পজেটিভ আপনিকি করোনা পরীক্ষায় গণস্বাস্থ্যকেন্দ্রের কিট ব্যবহারের বিপক্ষে? লক্ষ্মীপুরে ধান কেটে কৃষকের ঘরে পৌঁছে দিল ছাত্রলীগ লক্ষ্মীপুরে ২০০০ পরিবার পেল উপহার সামগ্রী
  • মঙ্গলবার ২৩ জুলাই ২০২৪ ||

  • শ্রাবণ ৮ ১৪৩১

  • || ১৫ মুহররম ১৪৪৬

লক্ষ্মীপুরে করোনায় নির্বিঘ্নে সেবা দিয়ে যাচ্ছেন ডাঃ জয়নাল

আলোকিত লক্ষ্মীপুর

প্রকাশিত: ২৮ এপ্রিল ২০২০  

লক্ষ্মীপুরে করোনায় পরিস্থিতিতে রাত দিন অবিরত সেবা দিয়ে যাচ্ছেন ডাঃ মোঃ জয়নাল আবদিন৷ তিনি লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালে ইএমও হিসেবে কর্তব্যরত আছেন৷

বিশ্বব্যাপী করোনার মহামারী প্রভাবে সাধারন মানুষ এক প্রকার ঘর বন্দি। সাধারন মানুষের পাশাপাশি অধিকাংশ ডাক্তারেরা সরকারি চিকিৎসা ছাড়া প্রাইভেট চিকিৎসা সেবা বন্ধ রেখেছে। এতে করে বেসরকারি ডায়াগনষ্টিক ও হাসপাতালে আগত রোগি সাধারণকে নির্দিষ্ট বিভাগের ডাক্তার না পেয়ে অসন্তুষ্ট হতে দেখা যায়। এক্ষেত্রে রোগি সাধারণের অসন্তুষ্টি কমাতে খুব বেশি তৎপর দেখা গেছে ডাঃ মোঃ জয়নাল আবদিনকে।

লক্ষ্মীপুর শহরের প্রায় বেসরকারি হাসপাতাল ও ডায়াগনষ্টিক সেন্টারের মালিকেরা দেশের এই সংকটময় মুহূর্তে ডাঃ মোঃ জয়নাল আবদিনের এমন নিঃস্বার্থ ভূমিকাকে সাধুবাদ জানিয়ে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন।

বাংলাদেশে করেনার আবির্ভাব থেকে ডাঃ মোঃ জয়নাল আবদিনের চিকিৎসা সেবা নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সন্তুষ্টি প্রকাশ করে বহুজনকে বিভিন্ন সময়ে পোস্ট করতে দেখা যায়।

উপরোক্ত বিষয়ে আলাপকালে ডাঃ মোঃ জয়নাল আবদিন জানান, করোনার শুরু থেকে সরকারি হাসপাতালে ডিউটির সময় ছাড়া বাকি সময়ে লক্ষ্মীপুর শহরের প্রায় বেসরকারি হাসপাতাল ও ডায়াগনষ্টিক সেন্টারে নিয়মিত রোগী দেখছি।

আল্লাহর উপর ভরসা রেখে সকল রোগীদের চিকিৎসা সেবা দিয়ে যাচ্ছি। তিনি বলেন করোনার জন্যে মানুষ সাধারন রোগ নিয়েও বাড়ি বসে থাকে। করোনার ভয়ে তারা চিকিৎসা সেবা নিতে আসছে না।
তাদের উদ্দেশ্য আমি বললো করোনা নিয়ে ভয় বা আতঙ্কিত হবেন না। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে সদর হাসপাতালে ২৪ ঘন্টা আউটডোর ও ইনডোর সেবা পাচ্ছেন। তাই আপনারা সাধারন রোগ হতে সকল রোগের চিকিৎসা নিন।

করোনাকে ভয় না পেয়ে কেবল সচেতনা দিয়েই জয় করতে হবে। করোনা আক্রান্ত অধিকাংশই সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে এবং মৃতের সংখ্যা শতকরা ৩ থেকে ৪ ভাগ৷

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি আরো বলেন যেদিন থেকে চিকিৎসকের তকমা গায়ে মেখেছি সেদিন থেকেই এ পেশাকে ধর্ম হিসেবে নিয়েছি। তাই দেশে এ মহামারি দুর্যোগ ও অঘোষিত যুদ্ধে একজন চিকিৎসক ও যোদ্ধা হিসেবে আমার অনেক দায়িত্ব ও কর্তব্য রয়েছে। আমি অন্য ৮-১০ জন মানুষের মত চাইলেই নিরাপদ বা সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে ঘরে থাকতে পারিনা।

তিনি বলেন আমি জানি সিলেটে সদ্য মহুরম ডাঃ মঈনের মত আমার জীবনেরও অনেক রিস্ক আছে। তারপরেও দেশের এ কান্তি লগ্নে অদৃশ্য শক্তির বিরূদ্ধে যুদ্ধ করে যাবোই এবং ইনশা-আল্লাহ করোনাকে আমরা সচেতনতা ও ভালোবাসা দিয়ে জয় করবো।

এ সময় তিনি আরো বলেন, রোগিদের উচিত ডাক্তারকে সব কথা খুলে বলা। কোন প্রকার তথ্য গোপন না করা।
করোনায় এ পর্যন্ত আক্রান্ত ডাক্তাদের বেশির ভাগই রোগিদের তথ্য গোপনের কারনে এবং রোগিদের দ্বারা আক্রান্ত হয়েছে।

সর্বশেষ তিনি লক্ষ্মীপুরের সকলের উদ্দেশ্যে বলেন করেনার এ সংকট অল্প কয়েকদিনের জন্য। তাই দয়া করে খুব বেশি জরুরি প্রয়োজন না হলে আপনারা ঘর থেকে বের হবেন না। ঘরে থাকুন, নিরাপদে থাকুন।

আলোকিত লক্ষ্মীপুর
আলোকিত লক্ষ্মীপুর
//