ব্রেকিং:
চার বছর পর সচিবদের সঙ্গে বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী মাওলানা ত্বহার হোয়াটসঅ্যাপ-ভাইভার অন; বন্ধ মোবাইল ফোন কে এই মাওলানা ত্বহার ২য় স্ত্রী সাবিকুন নাহার? আওয়ামীলীগের ধর্মীয় উন্নয়নকে ব্যাহত করতে ত্বহা ষড়যন্ত্র স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের ছবি ব্যবহার করে ফেসবুকে প্রতারণা লক্ষ্মীপুরে করোনা উপসর্গে প্রবাসীর মৃত্যু! লক্ষ্মীপুরে কৃষকের ধান কেটে দিলেন নির্বাহী কর্মকর্তা লক্ষ্মীপুরে করোনা রোগী ৩৭ জন : নতুন করে শিশুসহ আক্রান্ত ৩ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক করোনায় আক্রান্ত করোনার তাণ্ডবে প্রাণ গেল ২ লাখ ১১ হাজার মানুষের মারা যাওয়া তরুণের করোনা নেগেটিভ, তিন ভাই বোনের পজেটিভ লক্ষ্মীপুরে কৃষকের ধান কেটে বাড়ি পৌঁছে দিল এডভোকেট নয়ন লক্ষ্মীপুরে ত্রাণের সাথে ঘরও পেল লুজি মানসম্মত কোন ধাপ অতিক্রম করেনি গণস্বাস্থ্যের কিট পরিস্থিতি ঠিক না হলে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত সব স্কুল-কলেজ বন্ধ বিভিন্ন থানার পুলিশ সদস্যদের সাথে পুলিশ সুপারের ভিডিও কনফারেন্স লক্ষ্মীপুরে আরো ৩ জনের করোনা পজেটিভ আপনিকি করোনা পরীক্ষায় গণস্বাস্থ্যকেন্দ্রের কিট ব্যবহারের বিপক্ষে? লক্ষ্মীপুরে ধান কেটে কৃষকের ঘরে পৌঁছে দিল ছাত্রলীগ লক্ষ্মীপুরে ২০০০ পরিবার পেল উপহার সামগ্রী
  • রোববার ২৩ জুন ২০২৪ ||

  • আষাঢ় ৮ ১৪৩১

  • || ১৫ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

ত্রাণ দেওয়ার নামে দিনমজুরের মেয়েকে ‘ধর্ষণ’ করলেন জামায়াত নেতা

আলোকিত লক্ষ্মীপুর

প্রকাশিত: ১৬ এপ্রিল ২০২০  

বরগুনার তালতলীতে স্থানীয় ইউপি সদস্য জামায়াতে ইসলামীর নেতা আনোয়ার খানের বিরুদ্ধে এক দিনমজুরের মেয়েকে ধর্ষণ করার অভিযোগ উঠেছে। তিনি তালতলী উপজেলার শারিকখালী ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য ও জামায়াতে ইসলামীর রোকন।

ভুক্তভোগীর পরিবার সূত্রে জানা যায়, করোনাভাইরাসের কারণে কোনো কাজ করতে না পেরে কর্মহীন হয়ে পড়ে পরিবারটি। এ জন্য খাদ্য সংকটে পড়ে তারা। বিষয়টি স্থানীয় জামায়াতে ইসলামীর নেতা ও ইউপি সদস্যকে জানাতে গত সোমবার (৬ এপ্রিল) তাদের নাম সরকারি সহায়তার তালিকাভুক্ত করার জন্য ইউপি সদস্যের কাছে যান ভুক্তভোগীর মেয়েটির বাবা। তিনি সে সময় তার মেয়েকে সবার ভোটার আইডি কার্ড নিয়ে আসতে বলেন।

পর দিন গতকাল মঙ্গলবার বিকেল ৫টার দিকে ওই দিনমজুরের বিবাহিত মেয়ে ওই জামায়াত নেতার বাড়িতে গেলে তাকে ধর্ষণ করেন। এ সময় ওই মেয়ের স্বামী ইউপি সদস্যর বাড়িতে গিয়ে ঘটনাটি দেখে ফেলেন। এই ঘটনা কাউকে বললে খুন করারও হুমকি দেওয়া হয়। পরে বিষয়টি এলাকায় জানাজানি হলে ভুক্তভোগী দিনমজুর পরিবার থানায় মামলা করলে এলাকা ছাড়ার হুমকি দেওয়া হয়।

ভুক্তভোগী মেয়ের দাবি, তার স্বামীকে তুলে নিয়ে গেছে জামায়াতে ইসলামীর সেই নেতা। আজ বুধবার পর্যন্ত তার স্বামীর কোনো খোঁজ মেলেনি। এ ছাড়া তার পরিবারটিকে অবরুদ্ধ করে রাখা হয়েছে।

ভুক্তভোগীর বাবা সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমি দিনমজুরের কাজ করি। এই করোনাভাইরাসের কারণে আমি অসহায় দিনযাপন করছি। এর ভেতরে আমার মেয়ে তার স্বামীকে নিয়ে বেড়াতে আসেন বাড়িতে। তাই আমার সংসার চালাতে খুব কষ্ট হয়। স্থানীয় জামায়াতে ইসলামীর নেতা ও মেম্বার আনোয়ার খানের কাছে গেলে সে আমার মেয়েকে সবার ভোটার আইডি কার্ড নিয়ে তার বাড়িতে যেতে বলেন। পরে বিকেলের দিকে তার বাড়িতে আমার মেয়ে গেলে বাড়িতে কেউ না থাকায় ধর্ষণ করেন। এই ঘটনায় মামলা করলে এলাকা ছাড়ার হুমকি দেন তিনি।’

এ বিষয়ে অভিযুক্ত জামায়াতে ইসলামীর রোকন ও ইউপি সদস্য আনোয়ার খান বলেন, ‘আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা অপবাদ দিচ্ছে। এগুলো সব মিথ্যা। এই মেয়ে যাকে স্বামী হিসেবে পরিচয় দেয় সে আসল স্বামী না। তাকে তুলে আনা হয়নি বরং ছেলেটিকে তার পরিবারের কাছে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে।’

তালতলী উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ভারপ্রাপ্ত) সেলিম মিঞা বলেন, ‘খাদ্য সহায়তা দেওয়ার কথা বলে ধর্ষণ বিষয়টি খুব দুঃখজনক। বিষয়টি তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

আলোকিত লক্ষ্মীপুর
আলোকিত লক্ষ্মীপুর
//