ব্রেকিং:
চার বছর পর সচিবদের সঙ্গে বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী মাওলানা ত্বহার হোয়াটসঅ্যাপ-ভাইভার অন; বন্ধ মোবাইল ফোন কে এই মাওলানা ত্বহার ২য় স্ত্রী সাবিকুন নাহার? আওয়ামীলীগের ধর্মীয় উন্নয়নকে ব্যাহত করতে ত্বহা ষড়যন্ত্র স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের ছবি ব্যবহার করে ফেসবুকে প্রতারণা লক্ষ্মীপুরে করোনা উপসর্গে প্রবাসীর মৃত্যু! লক্ষ্মীপুরে কৃষকের ধান কেটে দিলেন নির্বাহী কর্মকর্তা লক্ষ্মীপুরে করোনা রোগী ৩৭ জন : নতুন করে শিশুসহ আক্রান্ত ৩ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক করোনায় আক্রান্ত করোনার তাণ্ডবে প্রাণ গেল ২ লাখ ১১ হাজার মানুষের মারা যাওয়া তরুণের করোনা নেগেটিভ, তিন ভাই বোনের পজেটিভ লক্ষ্মীপুরে কৃষকের ধান কেটে বাড়ি পৌঁছে দিল এডভোকেট নয়ন লক্ষ্মীপুরে ত্রাণের সাথে ঘরও পেল লুজি মানসম্মত কোন ধাপ অতিক্রম করেনি গণস্বাস্থ্যের কিট পরিস্থিতি ঠিক না হলে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত সব স্কুল-কলেজ বন্ধ বিভিন্ন থানার পুলিশ সদস্যদের সাথে পুলিশ সুপারের ভিডিও কনফারেন্স লক্ষ্মীপুরে আরো ৩ জনের করোনা পজেটিভ আপনিকি করোনা পরীক্ষায় গণস্বাস্থ্যকেন্দ্রের কিট ব্যবহারের বিপক্ষে? লক্ষ্মীপুরে ধান কেটে কৃষকের ঘরে পৌঁছে দিল ছাত্রলীগ লক্ষ্মীপুরে ২০০০ পরিবার পেল উপহার সামগ্রী
  • বুধবার ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ||

  • ফাল্গুন ৮ ১৪৩০

  • || ১০ শা'বান ১৪৪৫

এগিয়ে চলো আবারো জয় বাংলা বলে

আলোকিত লক্ষ্মীপুর

প্রকাশিত: ২৮ ডিসেম্বর ২০১৮  

আওয়ামী লীগের প্রচারণার পদ্ধতি বরাবরই অন্যদের চেয়ে আলাদা এবং আধুনিক। এবার গৎবাঁধা মাইকিং-এর চেয়ে গানে গানে প্রচারণায় বেশি সরব আওয়ামী লীগ। এসব গানে উঠে আসে মুক্তিযুদ্ধের কথা, বঙ্গবন্ধুর সংগ্রামের গল্প ও আওয়ামী লীগ সরকারের উন্নয়নের নানা খণ্ডকথা। তারমধ্যে 'সব বাধা পেরিয়ে- 'এগিয়ে চলো আবারো জয় বাংলা বলে' গানটি বেশ সাড়া জাগিয়েছে তরুণদের মধ্যে।

'বায়ান্ন'তে বলেছি, বাংলা শুধু আমার/একাত্তর-এ, এই দেশ। সবুজ প্রান্তরে, রক্তিম সূর্যোদয়/ সংগ্রাম থেকে স্বাধীনতা, আমার বাংলাদেশ। এগিয়ে চলো আবারো/ জয় বাংলা বলে। ' গানের এমন কথায় সবাই মুগ্ধ। অসংখ্য ফেসবুক পেইজ ও ইউটিউব চ্যানেল থেকে গানটি আপলোড করা হয়েছে। পেইজগুলো থেকে শেয়ার করা হয়েছে প্রায় লাখোবার।

ভিডিওটির শুরুতেই একাত্তরে বাংলার মানুষদের দেশ ছাড়ার চিত্র দেখানো হয়। এরপরই তৎকালীন রেসকোর্স ময়দানে বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণের চিত্র দেখানো হয়। তারপর মুক্তিযুদ্ধের বিভিন্ন খণ্ডচিত্র। অতঃপর ‘দখলদার পাক-বাহিনীর আত্মসমর্পন, সোনার বাংলা মুক্ত’।

বৃহস্পতিবার রাজধানী ঢাকার মোহাম্মদপুর, ধানমন্ডি, তেজগাঁও, পুরান ঢাকা, উত্তরা, মিরপুরসহ বিভিন্ন এলাকা ঘুরে আওয়ামী লীগের প্রচুর নির্বাচনী কার্যালয় দেখা গেছে। এসব কার্যালয়ে দিনভরই মাইকে বা সাউন্ড বক্সে নৌকায় ভোট চেয়ে ও সরকারের উন্নয়নের প্রচারসংবলিত রেকর্ড করা গান বাজতে দেখা যায়। তবে সবচেয়ে বেশি শোনা যায় 'জয় বাংলা, জিতবে এবার নৌকা' শিরোনামের গানটি। 'সব বাধা পেরিয়ে- এগিয়ে চলো আবারও জয় বাংলা বলে' গানটিও প্রচারণার গানের শীর্ষে ছিলো।

দীপ্ত মজুমদার নামের এক তরুণ ফেসবুকে লিখেন, 'নৌকার কোন বিকল্প নাই, নৌকা মার্কায় ভোট চাই। নৌকা এদেশের স্বাধীনতা ও উন্নয়নের প্রতিক।'

আওয়ামী লীগের উপপ্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আমিনুল ইসলাম বলেন, আওয়ামী লীগ দলগতভাবে প্রচারে কোনো ঘাটতি রাখছে না। পাশাপাশি ব্যবসায়ী, তারকা, সাংবাদিকসহ পেশাজীবীরাও নিজেদের মতো করে প্রচার করছেন। তবে তরুণ প্রজন্ম গানের প্রতি বেশি আগ্রহী। তাই অনেকেই নিজ উদ্যোগেও এসব কাজ করছেন।

 

আলোকিত লক্ষ্মীপুর
আলোকিত লক্ষ্মীপুর
//