ব্রেকিং:
চার বছর পর সচিবদের সঙ্গে বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী মাওলানা ত্বহার হোয়াটসঅ্যাপ-ভাইভার অন; বন্ধ মোবাইল ফোন কে এই মাওলানা ত্বহার ২য় স্ত্রী সাবিকুন নাহার? আওয়ামীলীগের ধর্মীয় উন্নয়নকে ব্যাহত করতে ত্বহা ষড়যন্ত্র স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের ছবি ব্যবহার করে ফেসবুকে প্রতারণা লক্ষ্মীপুরে করোনা উপসর্গে প্রবাসীর মৃত্যু! লক্ষ্মীপুরে কৃষকের ধান কেটে দিলেন নির্বাহী কর্মকর্তা লক্ষ্মীপুরে করোনা রোগী ৩৭ জন : নতুন করে শিশুসহ আক্রান্ত ৩ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক করোনায় আক্রান্ত করোনার তাণ্ডবে প্রাণ গেল ২ লাখ ১১ হাজার মানুষের মারা যাওয়া তরুণের করোনা নেগেটিভ, তিন ভাই বোনের পজেটিভ লক্ষ্মীপুরে কৃষকের ধান কেটে বাড়ি পৌঁছে দিল এডভোকেট নয়ন লক্ষ্মীপুরে ত্রাণের সাথে ঘরও পেল লুজি মানসম্মত কোন ধাপ অতিক্রম করেনি গণস্বাস্থ্যের কিট পরিস্থিতি ঠিক না হলে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত সব স্কুল-কলেজ বন্ধ বিভিন্ন থানার পুলিশ সদস্যদের সাথে পুলিশ সুপারের ভিডিও কনফারেন্স লক্ষ্মীপুরে আরো ৩ জনের করোনা পজেটিভ আপনিকি করোনা পরীক্ষায় গণস্বাস্থ্যকেন্দ্রের কিট ব্যবহারের বিপক্ষে? লক্ষ্মীপুরে ধান কেটে কৃষকের ঘরে পৌঁছে দিল ছাত্রলীগ লক্ষ্মীপুরে ২০০০ পরিবার পেল উপহার সামগ্রী
  • রোববার ১৪ জুলাই ২০২৪ ||

  • আষাঢ় ৩০ ১৪৩১

  • || ০৬ মুহররম ১৪৪৬

মাস্ক-স্যানিটাইজার বিতরণেও বিএনপির কৃপণতা!

আলোকিত লক্ষ্মীপুর

প্রকাশিত: ২৪ মার্চ ২০২০  

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে জনগণের মাঝে বৃহৎ পরিসরে মাস্ক, স্যানিটাইজার ও সাবান বিতরণে বিএনপির পরিকল্পনা ভেস্তে গেছে। জানা গেছে, দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের অনীহা, বিএনপি নেতাদের পলায়নপর নীতি এবং আর্থিক সংকটের কারণে বিএনপির এই কর্মসূচি বাতিল হয়েছে। এদিকে, করোনা ইস্যুতে জনগণের কাছে যাওয়ার একটি সুযোগ হারালো বিএনপি, এমনটাই মনে করছেন খোদ দলটির একাধিক দায়িত্বশীল নেতা।

বিএনপির স্থায়ী কমিটির একজন সদস্য পরিচয় গোপন রাখার শর্তে বলেন, করোনাভাইরাস মোকাবিলায় জনগণের মাঝে মাস্ক, স্যানিটাইজার, সাবান ও অন্যান্য চিকিৎসা সামগ্রী বিতরণের পরিকল্পনা করছিলেন স্থায়ী কমিটির তিনজন সদস্য। সেই অনুযায়ী তারেক রহমানের অনুমতিও চাওয়া হয়েছিল। কিন্তু তারেক করোনা নিয়ে দেশে কাজ করার বিষয়ে কোন নির্দেশনা দেননি। এরপরও শুধুমাত্র জনগণের কথা চিন্তা করে গোপনে ফান্ড গঠন করে গরীব মানুষের মাঝে বিতরণের চিন্তা করেছিলেন দলের কয়েকজন সিনিয়র নেতা। সেই অনুযায়ী ব্যবসায়ী মির্জা আব্বাস, আব্দুল আউয়াল মিন্টুর কাছে দ্বারস্থ হলে তারা প্রাথমিকভাবে সহায়তার আশ্বাস দেন। কিন্তু পরবর্তীতে এই দুই নেতা অর্থ সহায়তা দিতে অস্বীকৃতি জানান।

তিনি কিছুটা ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, করোনা ইস্যুতে চিকিৎসা সামগ্রী বিতরণের আড়ালে জনগণের কাছে পৌঁছানোর একটা সুযোগ ছিল বিএনপির। কিন্তু তারেক রহমানের অনীহা ও দলের বিত্তশালী নেতাদের কারণে জনগণের বিপদে দাঁড়াতে পারলো না বিএনপি। বিএনপির শক্তি হলো জনগণ। সেই জনগণের বিপদের যদি দল পাশে না থাকে তাহলে তাদের সাথে একধরণের প্রতারণা করার শামিল বলে মনে করছি আমি।

চিকিৎসা সামগ্রী বিতরণের বিষয়ে জানতে চাইলে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস বলেন, দলীয়ভাবে জনগণের মাঝে চিকিৎসা সরঞ্জাম বিতরণের বিষয়ে আমাকে একটা চিঠি দেয়া হয়েছিল। কিন্তু সেই চিঠিতে যে পরিমাণ অর্থ চাওয়া হয়েছে তা আমার কাছে অস্বাভাবিক মনে হয়েছে। যার কারণে আমি অর্থ দিতে রাজি হইনি। এর বেশি আমি কিছু বলতে চাইনা।

আলোকিত লক্ষ্মীপুর
আলোকিত লক্ষ্মীপুর
//